দ্বিতীয় ম্যাচেই সেরার মুকুট রাহীর মাথায়

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:০৯ এএম, ১৬ মে ২০১৯

বিপিএল দিয়ে নিজেকে চিনিয়েছিলেন এই তরুণ পেসার। তবে তার মধ্যে পেস টেম্পারমেন্ট দেখতে পাওয়ার কারণে টেস্ট অভিষেক করানো হয় অনেক আগে। গত বছর জুলাইতে টেস্ট অভিষেক ঘটে আবু জায়েদ রাহীর। তবে ভাগ্য তার সু-প্রসন্ন। বিশ্বকাপে দলে চতুর্থ পেসারের প্রয়োজন ফুরাতে ডাক পড়ে রাহীর। সে হিসেবে বিশ্বকাপের দলে ঠাঁই মিলে গেলো কোনো ওয়ানডে না খেলা এই তরুণ পেসারের।

কিন্তু বিশ্বকাপের আগে তো নিজেকে ঝালিয়ে নিতে হবে! সে জন্য বড় সুযোগ মিলে গেলো আয়ারল্যান্ডের ত্রিদেশীয় সিরিজ। প্রথম দুই ম্যাচের দলে সুযোগ পাননি। পেলেন পরের দুই ম্যাচে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগের ম্যাচে অভিষেক করানো হয় বাংলাদেশের এই পেসারের।

কিন্তু কি দুর্ভাগ্য, অভিষেকটা শূন্য হাতে ফিরতে হয়েছে রাহীকে। ৫৬ রান দিয়ে একটি উইকেটও পাননি তিনি। বরং, তখন থেকে কিন্তু সমালোচনাও সহ্য করতে হয়েছে এই পেসারকে। আলোচনার বিষয়বস্তু, রাহীকে বাদ দিয়ে বিশ্বকাপে রাখা হোক তাসকিনকে।

কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্ট রাহীর ওপরই আস্থা রাখলো। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তাকে আবারও রাখা হলো দলে এবং নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ম্যাচেই বাজিমাত করে দিলেন রাহী। বল হাতে নিয়ে নিলেন ৫ উইকেট। ৯ ওভার বল করে ৫৮ রান দিলেন এবং ৫ উইকেট নিয়ে আইরিশ ব্যাটিংয়ে ধ্বস নামা তিনি। সবচেয়ে বড় কথা তার বিধ্বংসী রূপের সামনে ৩০০ রানের কোটায় পৌঁছাতে পারেনি আইরিশরা।

ম্যাচ শেষ হওয়ার পর বিচারকদের দৃষ্টিতে লিটনের ৭৬, তামিমের ৫৭ কিংবা আয়ারল্যান্ডের স্টার্লিংয়ের ১৩০ বিবেচনায় আসেনি। এসেছে রাহীর ৫ উইকেট এবং তিনিই হলেন এই ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়। নিজের দ্বিতীয় ম্যাচেই সেরার পুরস্কার জিতে নিলেন আবু জায়েদ রাহী।

আইএইচএস/