করলো না আবেদন, বোকামির দণ্ড দিল পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪০ পিএম, ১৮ মে ২০১৯

টানা তিন ওয়ানডেতে ৩৪০ বা তার বেশি রানের রেকর্ড গড়েও ব্যর্থ, ইংল্যান্ডের জয়ের চেয়ে পাকিস্তানের হার নিয়েই বেশি কথা হচ্ছে। হওয়াই স্বাভাবিক, সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে যে জয়ের ভালো সুযোগই ছিল আনপ্রেডিক্টেবলদের। সুযোগ কাজে লাগাতে পারলেন না পাকিস্তানের বোলাররা। সঙ্গে বোকামি এক কাণ্ডে এখন সমর্থকদের রোষানলে সরফরাজ আহমেদের দল।

নটিংহামে ইংল্যান্ডের সামনে ৩৪১ রানের বড় লক্ষ্যই ছুড়ে দিয়েছিল পাকিস্তান। জবাবে ২৫৮ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়ে পরাজয়ের শঙ্কায় ছিল স্বাগতিকরা।

ইনিংসের ৪৩তম ওভারের ঘটনা। ইংল্যান্ড তখন ৬ উইকেটে ২৭৩ রানে। মোহাম্মদ হাসনাইনের করা ওভারে স্ট্রাইকে ছিলেন টম কুরান। ইংলিশদের জয়ের জন্য দরকার ৪৬ বলে ৬৮ রান।

হাসনাইনের লেন্থ বলটা মিড উইকেটে ঠেলে দিয়েই দৌড় দেন কুরান, সঙ্গী বেন স্টোকসের সেদিকে খেয়াল ছিল না। কুরানকে তাই স্ট্রাইকিং এন্ডে ফেরত যেতে হয়, প্রায় রানআউটই হয়ে যাচ্ছিলেন। থ্রোয়ে সরাসরি স্ট্যাম্প ভেঙে বল চলে যায় কভারে। এবার দুই রানের জন্য ডাক দেন স্টোকস, ডাবলস সম্পন্ন হবার ঠিক আগমুহূর্তে আবারও বল ধরে স্ট্যাম্প ভাঙেন উইকেটরক্ষক সরফরাজ আহমেদ।

কিন্তু অবাক করা ব্যাপার হলো, পাকিস্তান অধিনায়ক আবেদন করেননি। আম্পায়াররাও তাই বিষয়টি খেয়াল করেননি। পরে রিপ্লেতে দেখা যায়, টম কুরানের ব্যাট ক্রিজের দাগ থেকে বাইরেই ছিল। ৩১ রানে জীবন পাওয়া কুরান সপ্তম উইকেটে স্টোকসের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ৬১ রান যোগ করেন। অপরাজিত ৭১ রান করে স্টোকস তো দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন।

ওই সময়টায় পাকিস্তান যদি কুরানকে রানআউটে ফেরাতে পারতো, তবে ফলটা তাদের পক্ষে যাওয়ারই সম্ভাবনা ছিল। ম্যাচ শেষে তাই সরফরাজকে এটা নিয়ে কথা শুনতে হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনেও সাংবাদিকরা জানতে চেয়েছিলেন, কেন আউটের জন্য আবেদন করেননি পাকিস্তান অধিনায়ক। সরফরাজের জবাব, 'আমি ভেবেছিলাম বেল আগেই পড়ে গেছে। এজন্য রানআউটের আবেদন করিনি।'

একটুখানি ভুল হতে পারে বড় অনুশোচনার কারণ। পরপর তিন ম্যাচে ৩৪০ বা তার বেশি রান করেও জয়ের দেখা না পাওয়া পাকিস্তান সেটা হারে হারে টের পাচ্ছে।

এমএমআর/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :