উত্তেজনায় ঘুমাতেই পারেননি আফিফ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২৩ পিএম, ২৩ মে ২০১৯

সুদূর ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে, সিপিএল (ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ) ড্রাফটের ১৩তম রাউন্ডে যখন ডাকা হলো তার নাম, দেশে তখন মধ্যরাত, নিচ্ছিলেন ঘুমের প্রস্তুতি। কিন্তু সেন্ট কিটস এবং নেভিস প্যাট্রিয়টস তাকে কিনে নেয়ার পর আর ঘুমের সুযোগ কই? উত্তেজনা আর রোমাঞ্চে বাকি রাতটা কেটে গেল চোখের নিমিষেই।

মাত্র ১৯ বছর বয়সে দেশের সর্বকণিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে বিদেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলার সুযোগ পাওয়া চাট্টিখানি কথা নয় নিশ্চয়। সে সুযোগ পেয়ে স্বভাবতই অনেক বেশি রোমাঞ্চিত বাংলাদেশের বয়সভিত্তিক ক্রিকেটের পরিচিত মুখ আফিফ হোসেন ধ্রুব।

আসন্ন সিপিএলে তাকে দলে নিয়েছে সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস। এ খবরটি তিনি পেয়েছেন বুধবার রাত প্রায় ১২টার সময়। এরপর কথা হয়েছে বেশ কয়েকজন ক্যারিবীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে। তবু উত্তেজনার বশে হারিয়ে গিয়েছিল চোখের ঘুম।

এইচপি দলের অনুশীলনে আজ মিরপুরেই ছিলেন আফিফ। দিনের সব কাজ শেষে সংবাদমাধ্যমে তিনি বলেন, ‘রাতে ঘুম একটু কম হয়েছে। অনেক উত্তেজনায় ছিলাম। আমিও নিলাম দেখছিলাম। আমাকে দলে নিয়েছে সেই তথ্য দিয়ে তারা টুইটারে ছবি পোস্ট করেছে, দেখে ভালো লেগেছে। এর আগে দেশের বাইরে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলা হয়নি। যে দলে খেলব, সে দলের কয়েকজন ক্রিকেটারের সঙ্গেও কথা হচ্ছিল রাতে। অনেকেই শুভেচ্ছা জানিয়েছে। অন্যরকম একটি রোমাঞ্চ তো ছিলই। সে কারণে ঘুম হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি অনেক ভাগ্যবান, অল্পসময় ক্রিকেট খেলেই ভালো একটা সুযোগ পেয়েছি। চেষ্টা করবো নিজের শতভাগ দিয়ে যেন সুযোগ কাজে লাগাতে পারি। আমার ক্যারিয়ার সমৃদ্ধ করতে পারি। এটা অনেক বড় একটা সুযোগ।’

এদিকে সিপিএলে সুযোগ পেতে পারেন এমন আভাস আগেই পেয়েছিলেন আফিফ। কীভাবে? সবশেষ বিপিএল চলাকালীন ক্যারিবীয় ক্রিকেটাররাই তাকে বলাবলি করছিল, এখানে (বিপিএল) ভালো করলে সিপিএল নিলামেও দল পাওয়া যেতে পারে। তাই খুব একটা টেনশন কাজ করছে না আফিফের।

তিনি বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের অনেক ক্রিকেটারই বলেছে বিপিএলে ভালো করলে সিপিএলে সুযোগ আসার ব্যাপারটি। পুরান, ব্র্যাথওয়েট, ফ্লেচার ওরা খেলা দেখেছে। আর আমি নতুন হলেও কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারের সঙ্গে পরিচয় আছে। কয়েকজনের সঙ্গে কথাও হয়েছে। তাই টেনশনের কিছু মনে হচ্ছে না। বিপিএলের মতোই এটাকে আরেকটা ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট মনে করছি।’

এসএএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :