বাইশ গজে ১১ বছর, আবেগাপ্লুত কোহলি

শাহাদাৎ আহমেদ সাহাদ
শাহাদাৎ আহমেদ সাহাদ শাহাদাৎ আহমেদ সাহাদ , স্পোর্টস রিপোর্টার
প্রকাশিত: ০৪:৪৮ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৯

বর্তমান বিশ্ব ক্রিকেটে ব্যাটিংয়ের শেষ কথাই যেন ভারতীয় ব্যাটিং জিনিয়াস বিরাট কোহলি। ধারাবাহিক ব্যাটিং ও একের পর এক ম্যাচজয়ী পারফরম্যান্সে নিজেকে সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানদের কাতারে নিয়ে যাচ্ছেন ভারতের বর্তমান অধিনায়ক।

এরই মধ্যে কোহলির ঝুলিতে রয়েছে ৬৮টি সেঞ্চুরি। পুরো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাসে তার চেয়ে বেশি সেঞ্চুরি রয়েছে কেবল দুজনের। ভারতীয় ব্যাটিং ঈশ্বর শচিন টেন্ডুলকার অবসরে যাওয়ার আগে করেছেন সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি এবং অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং করেছেন ৭১টি সেঞ্চুরি।

শুধু সেঞ্চুরি সংখ্যায় নয়, নিজের ব্যাটিংশৈলী দিয়ে অজস্র সব রেকর্ড গড়েছেন কোহলি। বিশেষ করে ওয়ানডে ক্রিকেটে তার ধারে কাছেও নেই কোনো ব্যাটসম্যান। শুধু ওয়ানডেই নয়, তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটেই প্রায় পঞ্চাশ গড় নিয়ে খেলে যাচ্ছেন বর্তমান বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান।

নিজেকে সবার চেয়ে ওপরে নিয়ে যেতে কোহলির সময় লেগেছে মাত্র ১১ বছর। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোহলির পথচলা আজসহ ১১ বছর একদিনের। ২০০৮ সালের ১৮ আগস্ট শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ডাম্বুলায় একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিশ্ব ক্রিকেটে কোহলি নামক অধ্যায়ের।

ইনিংসের সূচনা করতে নেমে সে ম্যাচে কোহলি আউট হন ২২ বলে ১২ রান করে, ভারতও ম্যাচটি হেরে যায় ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে। কথায় আছে, সকালের সূর্য সবসময় সারাদিনের আভাস দেয় না- এ কথাটি পরবর্তী ১১ বছরে হারে হারে প্রমাণ করেছেন ভারতের ব্যাটিং জিনিয়াস।

১১ বছর আগের আগস্টের ১৮ তারিখে ১২ রান করে আউট হওয়া কোহলি এখন পর্যন্ত সব মিলিয়ে খেলেছেন ৩৮৬টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ। তার মধ্যে ৪২৬ ইনিংসে ব্যাট করে ৫৬.৬৩ গড়ে ২০৫০২ রান করেছেন তিনি। চলতি শতকে ২০ হাজারের অধিক আন্তর্জাতিক রান করা একমাত্র ক্রিকেটারই কোহলি।

এ রান করার পথে ৬৮টি সেঞ্চুরির সঙ্গে ৯৫টি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে কোহলির ঝুলিতে। তার খেলা ৩৮৬ ম্যাচের মধ্যে ২২৭টিতেই জিতেছে ভারত। সেসব জেতা ম্যাচের মধ্যে ৫৩টিতেই আবার সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতেছেন দিল্লির এ ব্যাটসম্যান। এছাড়া সব মিলিয়ে ভারতের জয়ের ম্যাচে ৪৬টি সেঞ্চুরি ও ৫৯টি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে কোহলির।

তর্কাতীতভাবে তাকেই বর্তমান বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান তথা ক্রিকেটার বলেন ক্রিকেটবোদ্ধারা। এ দাবির পক্ষে কথা বলে কোহলির নিজের পারফরম্যান্সই। তবে ক্রিকেটের বাইশ গজে ১১ বছর কাটিয়ে, অজস্র রেকর্ড নিজের নামের পাশে লিখিয়েও কোনো উচ্চবাচ্য করতে রাজি নন নিন্দুকদের কাছে ‘অহংকারী’ এ ক্রিকেটার।

বরং নিজের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ১১ বছর পূর্তিতে বেশ আবেগাপ্লুতই দেখা গেল কোহলিকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ক্রিকেট মাঠে ১১ বছর কাটিয়ে দেয়া উপলক্ষে এক আবেগময় বার্তাই দিয়েছেন কোহলি।

নিজের অভিষেক ম্যাচে হতাশাপূর্ণ অভিব্যক্তি সংবলিত এক ছবি আপলোড করে কোহলি লিখেন, ‘২০০৮ সালের এই দিনে একজন কিশোর হিসেবে শুরু। তারপর থেকে আজ পর্যন্ত ঈশ্বর আমাকে যা দিয়েছেন, তা আমি কখনও কল্পনাও করিনি। আমি আশা করবো সবাই নিজেদের স্বপ্ন তাড়া করার শক্তি পাবেন এবং সঠিক পথে থাকবেন। সর্বদা কৃতজ্ঞ।’

এসএএস/এমএস