বিকেএসপির ক্যান্সারে আক্রান্ত খেলোয়াড়ের পাশে সাকিব-মুশফিক

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৩১ পিএম, ২৬ আগস্ট ২০১৯

আগের দিন প্রায় তিন ঘণ্টা নেটে ব্যাটিং প্র্যাকটিস করেছেন। আজও (সোমবার) সকাল ১০টায় প্র্যাকটিস শুরুর পর ঘণ্টাখানেক ব্যাটিংটা ঝালিয়ে নিলেন। তারপর বেলা ১২টার কিছু সময় পর হঠাৎ মাঠ ও ড্রেসিংরুম ছেড়ে শেরে বাংলার দোতলায় বিসিবি অফিসে মিডিয়া রুমে এসে হাজির সাকিব আল হাসান।

অধিনায়ক সাকিব কেন হঠাৎ প্র্যাকটিস, মাঠ ও ড্রেসিংরুম ছেড়ে বিসিবি মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমামের কক্ষে? উৎসুক সাংবাদিকদের ইতিউতি তাকানো। কিছু কৌতূহলি চোখ ঘোরাফেরা করলো। কিন্তু সাকিব কারো সঙ্গেই সে অর্থে কথা না বলে বিসিবি মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমামের কক্ষে ঢুকে কোচ মেন্টর মোহাম্মদ সালাউদ্দীনের সঙ্গে এক মিনিট কথা বলে বেরিয়ে গেলেন।

কী ব্যাপার? সাকিব কী বিষয়ে কথা বললেন গুরু সালাউদ্দীনের সঙ্গে? অতি উৎসাহী কেউ কেউ আবার ভেবে বসলেন, তবে কি নতুন হেড কোচের অধীনে প্র্যাকটিসের পাশাপাশি টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি ক্যাপ্টেন সাকিব কি আবারও বিশ্বকাপের আগের সময়ের মত প্রিয় গুরু সালাউদ্দীন স্যারের শরণাপন্ন হতে যাচ্ছেন?

বিষয়টি নিয়ে টাইগারদের প্র্যাকটিস কভার করতে আসা সাংবাদিকদের একাংশের মধ্যে গুঞ্জন, প্রাণচাঞ্চল্য। খোঁজ নিয়ে জানা গেল, মানে সাকিব যার সঙ্গে, যাকে নিয়ে কথা বললেন, সেই বিসিবির সিনিয়র মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম আর মোহাম্মদ সালাউদ্দীন জাগো নিউজকে জানালেন আসল ঘটনা।

কোন ক্রিকেটীয় কার্যক্রম নয়, মানবিক কারণেই সাকিব আগে আগে নিজের প্র্যাকটিস শেষ করে বিসিবি মিডিয়া এসেছেন। আসল ঘটনা হলো, বিকেএসপির ছাত্র সাকিব একই প্রতিষ্ঠানের আরেক সাবেক ছাত্রী সাবেক নামী ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় ক্যান্সার আক্রান্ত আশেদা খাতুন রোমার পাশে দাঁড়িয়েছেন।

উল্লেখ্য, সাবেক জাতীয় নারী ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় এবং জাতীয় মহিলা দ্বৈত ও মিশ্র দ্বৈত চ্যাম্পিয়ন আশেদা খাতুন রোমা ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ভারতের মুম্বাইয়ে চিকিৎসাধীন। তার চিকিৎসায় খরচ হচ্ছে মোটা অংকের অর্থ।

আশেদা রোমার ভাই জাতীয় হকি দলের সাবেক অধিনায়ক আসাদুজ্জামান চন্দনকে উদ্ধৃত করে এ খবর পত্রিকায় এসেছে। বলে রাখা ভাল, চন্দন নিজেও বিকেএসপির ছাত্র। আশেদা রোমার চিকিৎসায় সাহায্য করতে সাকিব এগিয়ে এসেছেন।

শুধু এগিয়েই আসেননি নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানা গেছে সাকিব ২ লাখ টাকা দেয়ার নিশ্চয়তাও দিয়েছেন এবং গুরু সালাউদ্দীন ও বিকেএসপির বড় ভাই রাবিদ ইমামের সঙ্গে আলাপে তা নিশ্চিত করে দিয়েছেন।

জানা গেছে সাকিব একা নন, জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও বিকেএসপির আরেক সাবেক ছাত্র মুশফিকুর রহিমও অর্ধ লক্ষ টাকা সাহায্য করবেন। এছাড়া মোহাম্মদ মিঠুন এবং বিকেএসপির প্রায় সব জাতীয় ক্রিকেটার আশেদা রোমার ক্যান্সারের চিকিৎসার খরচ জোগানোয় এগিয়ে এসেছেন।

বিকেএসপির সাবেক ছাত্র ও কোচ সালাউদ্দীন পুরো কার্যক্রমটি সমন্বয় করছেন। জাগো নিউজের সঙ্গে আলাপে সালাউদ্দীন বলেন, সাকিব-মুশফিকসহ বিকেএসপির সাবেক ছাত্রদের মধ্যে অনেকেই এরই মধ্যে আশেদা রোমার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন, অর্থ সাহায্যও করেছেন।

উল্লেখ্য, রোমার চিকিৎসায় খুব শীঘ্রই দুটি ইনজেকশন দিতে হবে। যার একটির মূল্য বাংলাদেশের টাকায় আড়াই লাখ টাকার মত। এর বাইরে প্রতিদিনের খরচও আছে। সব মিলে বিকেএসপির সাবেক ছাত্র জাতীয় ক্রিকেটার, ফুটবলার ও হকি প্লেয়ারদের অনেকেই ক্যান্সারে আক্রান্ত রোমার পাশে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলে জানালেন সালাউদ্দীন।

এআরবি/এসএএস/এমকেএইচ