ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি নিয়মিতই লেগ স্পিন করতেন বিপ্লব

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:১৪ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

তিনি জেনুইন বোলার, তথা স্পেশালিস্ট লেগস্পিনার নন। মূলতঃ ব্যাটসম্যান। পাশাপাশি লেগব্রেক বোলিংটাও করেন। গত কয়েক দিন একথা শুনতে শুনতে কান ‘ঝালাপালা’ হবার যোগাড়।

এটা সত্য, গত বছর প্রিমিয়ার লিগ খেলা ২০ বছরের তরুণ আমিনুল ইসলাম বিপ্লব বর্তমানে হাই পারফরমেন্স (এইচপি) ইউনিটের ফ্রন্টলাইন পারফরমার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন ব্যাটিং ও ফিল্ডিং দিয়ে। ব্যাটিংটাই তার প্রথম। বোলিংটা পরে।

কিন্তু জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আর এইচপির কোচ সায়মন হেলমুট তার লেগস্পিন বোলিংটাকেও গননার মধ্যে রেখেছিলেন এবং সেই বিবেচনায় থেকেই এই মুহূর্তে জাতীয় দলে লেগ স্পিনার কোটায় আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

কখন কবে এবং কিভাবে বিপ্লবের লেগস্পিন দেখে আকৃষ্ঠ হয়েছিলেন এবং তাকে জাতীয় দলে নেয়ার ইচ্ছেটাই বা হলো কি করে এবং কবে? এ প্রশ্নের উত্তরে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু জাগো নিউজকে জানান, এইচপির নেটে বিপ্লবের গুড লেন্থে অবিরাম বোলিং করতে দেখেই তার ভাল লেগেছিল।

নান্নুর ভাষায়, ‘আমি সবচেয়ে আকৃষ্ট হয়েছিলাম যে, সে (বিপ্লব) নেটে একটিও শর্ট অফ লেন্থ ডেলিভারি ছোড়েনি। সবগুলো বল ফেলছিল গুডলেন্থে। ‘লং হফ’ দেয়নি একবারও। একজন লেগস্পিনার খাট লেন্থে বল ফেলছে না, অফ স্ট্যাম্প, লেগ স্ট্যাম্পের বাইরে ব্যাটসম্যানকে পর্যাপ্ত জায়গা ও বেশি সময় নিয়ে খেলার সুযোগ দিচ্ছে না । খুব ভাল জায়গায় বল ফেলছে, এটা দেখেই আসলে আকৃষ্ট হই এবং এইচপি কোচ হেলমুটকে বলি বিপ্লবকে নেটে নিয়মিত বল করাতে। তারপর জাতীয় দলে হঠাৎ একসাথে কিছু ক্রিকেটারের অফ ফর্মে, কিছু কাটছাট করে দল সাজাতে গিয়ে বিপ্লবকে মূল দলে টেনে নেই।’

এ দিকে যারা বিপ্লবকে আগে ব্যাটসম্যান ও পরে লেগি বলছেন এবং তা নিয়ে অহেতুক একটা নেতিবাচক পরিস্থিতির উদ্রেক ঘটানোর চেষ্টা করছেন, তাদের মুখ বন্ধ হবার খোরাকও কিন্তু আছে। সময়ের আলোচিত লেগি বিপ্লব আজ পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, ক্যারিয়ারের শুরু থেকে টপ ও মিডল অর্ডারে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি তিনি লেগ স্পিন বোলিংও করতেন।

অর্থাৎ পুরোদস্তু ব্যাটসম্যান আর ‘অকেশনাল’ বা অনিয়মিত স্পিনার নন, তিনি ক্যারিয়ারের শুরু থেকে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি নিয়মিত বোলিং করতেন; কিন্তু কাঁধের ইনজুরির কারনে, মাঝে বেশ কিছুদিন বোলিং করা সম্ভব হয়নি তার।

আজ বন্দর নগরীর রেডিসন ব্লু হোটেলে উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে আলাপে বিপ্লব জানান, ‘আসলে আমি ক্যারিয়ারের শুরু থেকে বোলিং করতাম। মাঝে অনেকদিন গ্যাপ গেছে বোলিংয়ে। কাঁধেরে ইনজুরির কারণে বোলিং করতে পারতাম না। ইনজুরিটা প্রিমিয়ার লিগের সময় হয়েছিল। কাঁধের ইনজুরি সেরে উঠার পর কোচ সাইমন হেলমুট আমার বোলিং নিয়ে কাজ শুরু করেন।’

এআরবি/আইএইচএস/জেআইএম