আফগানদের হারাতে কী করতে হবে, জানালেন শফিউল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:১৪ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

তিন দলের টুর্নামেন্টে কোনো দল যখন হেরে যায় চার ম্যাচের মধ্যে তিনটিতে, তখন বাকি ম্যাচগুলো অনর্থকই হয়ে যায় অন্য দুই দলের জন্য। ঠিক যেমন হয়েছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের জন্য। চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচ হেরে এরই মধ্যে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে জিম্বাবুয়ের এবং ফাইনালে পৌঁছে গেছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান।

যার ফলে আজ (শুক্রবার) আফগানিস্তান ও জিম্বাবুয়ে এবং শনিবার বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার ম্যাচটির গুরুত্ব আসলে শূন্য। কেননা এ দুই ম্যাচে ফলাফলে টুর্নামেন্টে কোনো প্রভাব পড়বে না। মঙ্গলবার বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানই খেলবে ফাইনাল ম্যাচে।

এমতাবস্থায় শনিবার বাংলাদেশ-আফগানিস্তান ম্যাচে স্বাগতিক দলের লক্ষ্য কী থাকবে? শুক্রবার সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে আলাপে জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের পেসার শফিউল ইসলাম। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বুধবারের জয়ের ধারাটা বজায় রাখার আশাবাদ এই ডানহাতি পেসারের কণ্ঠে।

তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় যে (শনিবার) প্রস্তুতিটা ভালোভাবে নেয়ার একটা সুযোগ থাকবে। কালকের ম্যাচটাও আমাদের সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমরা যদি ভালো খেলি, ইতিবাচক ফল পাই তাহলে এটা থেকে সবার আত্মবিশ্বাস বাড়বে। এছাড়া জেতার অভ্যাসটাও সবার জন্য বড় একটা অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে ফাইনালের জন্য।’

আফগানদের বিপক্ষে প্রথম লেগের ম্যাচে দলে ছিলেন না শফিউল। সুযোগ পেয়েছেন পরের ম্যাচে। দলে ফিরেই নিয়েছেন ৩ উইকেট। আফগানদের বিপক্ষে আগের ম্যাচে না খেললেও ওদের হারাতে কী কী করতে হবে, তা যেনো জানা আছে শফিউলের। এ সম্পর্কিত প্রশ্নে তার জবাব, ‘আমরা যদি নিজেদের ভুলগুলো শোধরাতে পারি। নিজেদের কাজগুলো শতভাগ করতে পারি, তাহলে ওদেরকে হারানো সম্ভব।’

স্বাভাবিকভাবেই পেসের চেয়ে স্পিন ভালো খেলে আফগানিস্তান। এমতাবস্থায় তাদের বিপক্ষে পরিকল্পনা কেমন হওয়া উচিৎ? উত্তরে শফিউল বলেন, ‘এটা টিম ম্যানেজম্যান্ট ঠিক করবে। স্পিন বা পেস- যে পরিকল্পনাতেই খেলি না কেন, বোলাররা যদি নিজেদের জায়গামত বোলিং করতে পারে, নিজেদের শক্তির জায়গা ধরে রেখে বল করতে পারে, নিজের শক্তির বাইরে না যায়- তাহলে ভালো করা সম্ভব।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের সাধারণত যে পরিকল্পনা থাকে, সেটাই। আমরা যত ভালো বোলিং করবো, ব্যাটসম্যানদের জন্য তত চাপ কম থাকবে। আমর যেনো ওদের কম রানের মধ্যে আটকে রাখতে পারি, পেস বোলারদের যে দায়িত্ব সেটা যেনো পালন করতে পারি- এটাই মূল চাহিদা।’

এসএএস/এমকেএইচ