হাতে সেলাই থাকা বিপ্লবকে খেলানোর পক্ষে নন ডোমিঙ্গো

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:১০ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

টিম বাংলাদেশ একজন লেগ স্পিনারের খোঁজে ছিল অনেকদিন ধরেই। জিম্বাবুয়ের সাথে টি-টোয়েন্টি অভিষেকে সে অপূর্ণতা কাটিয়ে দিয়েছেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। ১৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ৪ ওভারে ১৮ রানে ২ উইকেট দখল করে সবার নজরে এসেছেন এ তরুণ লেগস্পিনার।

কিন্তু দুর্ভাগ্য তার, যে ম্যাচে পাদপ্রদীপের আলোয় আসলেন, ঠিক সেই ম্যাচেই ফিল্ডিংয়ের সময় বাঁ হাতে বলের আঘাতে ব্যাথা পেয়ে মাঠের বাইরে চলে গেছেন। বাঁতের তালু আর আঙ্গুলে তিনটি সেলাই দিতে হয়েছে। যে সেলাই কাটা হয়নি এখনো।

এখন ফাইনালের আগে তাকে নিয়ে নানা কথা। বিপ্লব ২৪ সেপ্টেম্বরের ফাইনাল খেলবেন কি না? ভক্ত ও সমর্থকদের কৌতুহলি প্রশ্ন। ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদ- সম্ভবত বিপ্লবের খেলা হচ্ছে না ফাইনালে। খোদ কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোইর মুখেই এমন পূর্বাভাষ।

যার হাতের ছোঁয়ায় তার পরিণত হওয়া। যে কোচের হাত ধরে তিনি ঢাকা লিগেও খেলেছেন। সেই কোচ ও মেন্টর ভারপ্রাপ্ত স্পিন কোচ সোহেল ইসলাম আগের দিনই জানিয়েছেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব খেলতে মুখিয়ে। বাঁ-হাতে সেলাই এবং ব্যান্ডেজ নিয়েও সে খেলতে চায়।

এই ২০ বছর বয়সী তরুণ লেগস্পিনার যে সত্যিই মঙ্গলবারের ফাইনাল খেলতে উন্মুখ হয়ে আছেন, তার প্রমাণ মিললো আজ টিম বাংলাদেশের প্র্যাকটিস সেশনেই। ঘড়ির কাঁটা তখনো বেলা ১২টা স্পর্শ করেনি। বাংলাদেশের নেট চলছে শেরে বাংলা স্টেডিয়ামের পূর্ব দিকের ইনডোরে।

সেখান থেকে ব্যাটিং প্র্যাকটিস শেষ করে একজন একজন করে হোম অব ক্রিকেটে নিজেদের ড্রেসিং রুমে এসে অবস্থান নিলেন। এর মধ্যে হঠাৎ দেখা মিললো আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের। বাঁ-হাতের প্লাস্টার এখন আর নেই। নেটে দীর্ঘক্ষণ বোলিং করে ঘেমে নেয়ে পানির পিপাসা মেটাতে এসেছেন। ড্রেসিং রুমের সামনে আইস বক্সের ভিতরে থাকা পানির বোতল নিয়ে চলে গেলেন রুমের ভেতর।

এটুকু শুনে নিশ্চয়ই ভাবছেন, বিপ্লব কাল নিশ্চিত খেলছেন; কিন্তু কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর কথা শুনে মনে হলো, এ তরুণ লেগ স্পিনারের আর কাল খেলা হবে না।

আজ সোমবার দুপুরে শেরে বাংলায় সংবাদ সন্মেলনে আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ছোটখাট একটা বিবৃতির মত দিলেন। যার সারমর্ম হলো, হাতে সেলাই নিয়ে কোন ক্রিকেটারের খেলা তিনি সমর্থন করেন না।

প্রশ্ন ছিল আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের খেলার সম্ভাবনা কতটা? রাসেল ডোমিঙ্গোর জবাব, ‘যদিও ইনজুরি তার স্পিনিং হ্যান্ড মানে ডান হাতে নয়, তারপরও বাঁ হাতে দু-তিনটি সেলাই আছে তার। একজন কোচ হিসেবে আমি এমন একজন খেলোয়াড়কে খেলানোর পক্ষে নই।’

কোচ হিসেবে কেন তিনি একজন আহত ও হাতে সেলাই থাকা ক্রিকেটারকে খেলানোর বিপক্ষে- তার ব্যাখ্যাও আছে। সংবাদ সন্মেলনে বাংলাদেশ কোচ পরিস্কার বলে দিলেন, যে হাতেই ব্যান্ডেজ থাকুক না কেন, তার পক্ষে তো আর এক হাতে ফিল্ডিং, ক্যাচিং করা সম্ভব নয়। এখন যদি একটি কঠিন ক্যাচ চলে আসে। কিংবা তার বলে কারো জোরালো শট প্রতিহত করতে হতেই পারে। তখন আবার ইনজুরির সম্ভাবনা থাকবে।’

বাংলাদেশ দলের কোচ নতুন করে জানিয়ে দিলেন, তিনি সব সময় শতভাগ ক্রিকেটারকে দলে চান। তার কথা, ‘আমি সব সময়ই শতভাগ ফিট ক্রিকেটারকে খেলানোর পক্ষে।’ ডোমিঙ্গোর শেষ কথা, ‘হাতে সেলাই নিয়ে আমি বিপ্লবের খেলার কোন সম্ভাবনাই দেখছি না।’

এআরবি/আইএইচএস/জেআইএম