শেষ পর্যন্ত অমীমাংসিতই রইলো ঢাকা-রাজশাহী ম্যাচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৫ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০১৯

তৃতীয় দিন শেষেই বোঝা হয়ে গিয়েছিল ফতুল্লাহর খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে জাতীয় লিগের প্রথম স্তরে ঢাকা-রাজশাহীর ম্যাচটি শেষ হতে পারে অমীমাংসিতভাবেই। তবুও একটা সম্ভাবনা ছিল, শেষদিন কোনোভাবে যদি ঢাকা মিরাকল কিছু ঘটিয়ে ফেলে, তাহলে জিততেও পারে তারা।

কিন্তু ম্যাচের অবস্থা দেখে মনে হলো, দুই দলের কেউই জয়ের চেষ্টা করলো না। দু’দলই থাকতে চাইলো নিরাপদ অবস্থানে। যে কারণে শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি শেষ হলো ড্র’য়ের মধ্য দিয়েই।

তৃতীয় দিন শেষ বিকেলে ৬ উইকেটে ২০৬ রান নিয়ে মাঠ ছাড়ে ঢাকা বিভাগ। তাইবুর রহমান ৬৭ এবং সুমন খান অপরাজিত ছিলেন ১ রানে। চতুর্থ দিন ব্যাট করতে নেমে তাইবুর রহমান আউট হয়ে যান ৮৮ রানে। সুমন খান ৯ রানে, নাজমুল ইসলাম ৮ রানে এবং শাহাদাত হোসেন আউট হন ৮ রানে।

ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫৪ রানে অলআউট হয়ে যায় ঢাকা বিভাগ। প্রথম ইনিংসে তারা করেছিল ২৪০ রান। তাইজুল ইসলাম একাই নেন ৫ উইকেট। ৩ উইকেট নেন ফরহাদ রেজা। বাকি দু’জন হলেন রানআউট।

দ্বিতীয় ইনিংসে জয়ের জন্য ২৯৮ রানের লক্ষ্য পায় ঢাকা বিভাগ। জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামলেও তাদের চিন্তায় জয় ছিল কি না সন্দেহ। ফলে দেখা গেলো জহুরুল ইসলাম অমিছাড়া আর কেউ তেমন দায়িত্ব নিয়েও ব্যাট করেননি। ৪০ রানে অপরাজিত ছিলেন জহুরুল।

৬৪ ওভার খেলে দ্বিতীয় ইনিংসে রাজশাহী বিভাগের স্কোর দাঁড়ায় ১০৬ রান। মাত্র ১.৬৫ গড়ে রান তোলে রাজশাহী। ফলে জয়-পরাজয় আর নির্ধারণ হলো না। ম্যাচ শেষ হলো ড্র’তেই। প্রথম ইনিংসে তারা অলআউট হয়েছিল ১৯৭ রানে।

ঢাকার তাইবুর রহমান হলেন ম্যান অব দ্য ম্যাচ। প্রথম ইনিংসেও তিনি অপরাজিত ছিলেন ৮৮ রান করে। দ্বিতীয় ইনিংসেও করলেন ৮৮ রান। বিপরীতে রাজশাহীর মুশফিকুর রহীম করেন ৭৫, দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ২১ রান। রাজশাহীর বোলার তাইজুল ইসলাম দুই ইনিংস মিলে উইকেট শিকার করেন ৯টি (৪ +৫)।

আইএইচএস/জেআইএম