সেই শ্রীনিবাসনকে নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন সৌরভ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:১৬ পিএম, ১৪ অক্টোবর ২০১৯

ফিক্সিং আর দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত এন শ্রীনিবাসন। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি দখল করে নিয়েছিলেন পুরো আইসিসিকেও। তৈরি করেছিলেন বিভাজন। তিন মোড়ল তত্ব হাজির করে পুরো ক্রিকেট বিশ্বকে শাসন করেছিলেন শ্রীনিবাসন। যার শোষণ থেকে এখনও পুরোপুরি বের হয়ে আসতে পারেনি ক্রিকেট বিশ্ব।

সেই এন শ্রীনিবাসন এবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে পারছেন না। তবে, নির্বাচনে অংশ নিতে না পারলেও নেপথ্যে থেকে যাবতীয় কলকাঠি নাড়ছেন তিনিই। ভারতের সাবেক অধিনায়ক, পশ্চিমবঙ্গ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলিকে সর্বসম্মতভাবে বিসিসিআইয়ের আগামী সভাপতি নির্বাচন করার পেছনেও মূল হাত রয়েছে শ্রীনির।

এতদিন পেছনে থেকে কলকাঠি নাড়লেও এবার একেবারে প্রকাশ্যে এসে হাজির হয়েছেন তিনি। মুম্বাইয়ে বিসিসিআইয়ের সদর দপ্তরে সভাপতি পদে সৌরভ গাঙ্গুলি যখন মনোনয়ন পত্র জমা দিতে যান, তখন তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সভাপতি এন শ্রীনিবাসন, বিসিসিআইর সাবেক প্রভাবশালী কর্মকর্তা রাজীব শুক্লা, নিরঞ্জন শাহদের মতো ব্যক্তিরা। মূলতঃ আড়ালে থেকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড পরিচালনা করেন এরাই।

বিসিসিআইয়ের সভাপতি পদে নির্বাচন যারা করবেন, তাদের মধ্য থেকে পুরো প্যানেল নির্ধারণ করা হয়েছে। সেখানে সভাপতি পদে শুধুমাত্র সৌরভই মনোনয়ন জমা দিচ্ছেন। আর কেউ এই পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবে না। এর অর্থ হচ্ছে, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় বিসিসিআইর সভাপতি নির্বাচিত হয়ে যাচ্ছেন সৌরভ।

শনিবার রাতে অনেকটা নাটকীয়ভাবে বিসিসিআইর বিভিন্ন রাজ্য সংস্থার প্রতিনিধিরা পরের প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাছাই করে নেন সৌরভকে। প্রাথমিকভাবে ব্রিজেশ প্যাটেলের নামই এই পদে শোনা গিয়েছিল; কিন্তু আচমকা পটপরিবর্তনে বাজিমাত করেন সৌরভ।

সোমবার দুপুরে সৌরভ যখন আরব সাগরের তীরে মুম্বাইয়ে বিসিসিআইয়ের সদরদফতরে আসেন তখন তার সঙ্গে ছিলেন শ্রীনিবাসন গং। সেখানে অপেক্ষায় ছিলেন গণমাধ্যম কর্মীরা। ঠেলাঠেলির মধ্য দিয়েই ভিতরে প্রবেশ করেন সৌরভ।

আইএইচএস/এমএস