এবারের বিপিএল দিয়ে হবে আগামী বিশ্বকাপের প্রস্তুতি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৩৮ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৯

হঠাৎ করেই সিদ্ধান্তটি নিয়েছিল বিসিবি। এবার কোনো ফ্রাঞ্চাইজি থাকবে না। পুরো বিপিএলের আয়োজন এবং দল পরিচালনা- সবই করবে বিসিবি। বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে তার নামেই এবারের টুর্নামেন্টটা আয়োজন করতে চায় বলেই বিসিবি এমন সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল।

তবে এই সিদ্ধান্তের পেছনে একটা বড় অন্তর্নিহিত উদ্দেশ্যও ছিল। যেটা আজ মিডিয়ার সামনে প্রকাশ করলেন বিসিবি সভাপতি। অন্তর্নিহিত উদ্দেশ্যটা হচ্ছে, আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি।

তাহলে বিপিএল ফ্রাঞ্চাইজিদের রেখে আয়োজন করা হলে কি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হতো না? এর জবাব হচ্ছে, ‘না’। কারণ, ফ্রাঞ্চাইজিরা সব সময়ই চায় বিদেশি খেলোয়াড়দের বেশি সুযোগ দিয়ে ম্যাচ জিততে। দেশি খেলোয়াড়দের কদর কখনোই ফ্রাঞ্চাইজিরা করে না।

বিসিবি এবার নিজেদের ইচ্ছামত দেশি খেলোয়াড়দের খেলানো এবং তাদের ভেতর থেকে প্রতিভা তুলে আনার লক্ষ্যেই নিজেরা এবারের বিপিএল আয়োজন এবং দল পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সেটাই জানালেন আজ মিডিয়ার সামনে উপস্থিত হয়ে।

মূলতঃ লেগ স্পিনার বের করে আনার উদ্দেশ্যটাই কাজ করছে সবার আগে। আজ জাতীয় লিগের এক ম্যাচে কোনো লেগ স্পিনারকে না খেলানোয় ঢাকা বিভাগ এবং রংপুর বিভাগের কোচকে ঢাকায় ডেকে এনে বরখাস্ত করেছে বিসিবি। এ বিষয়টাকেও সামনে তুলে আনেন বিসিবি প্রধান।

তিনি বলেন, ‘প্রধান কনসেপ্টটা হচ্ছে, আমরা আমাদের কিছু খেলোয়াড়কে খেলাতে চাই, যেটি হচ্ছে না। দেখুন এবার এনসিএল হচ্ছে, এতকিছু বলার পরেও..., আসলে সমস্যা যে কেন হয় এটা তো বলা মুশকিল। এখনো দেখেন আমরা লেগ স্পিনার নিয়ে এত কথা বলছি, এনসিএলে লেগ স্পিনার রিশাদকে এখনো খেলানো হয়নি। লিখনকেও খেলানো হয়নি। আমরা এত কিছু বলার পরেও...। আসলে দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে যখন সেরা একাদশ নামাচ্ছে, আমরা তো বলেছি, আমি তো নিশ্চিত ছিলাম যে আজকে নামবে (রিশাদ এবং লিখন)। আজকে দেখছি এখনও নামেনি। এখানে তাহলে কি করণীয়। এই নিয়ন্ত্রণটি আমাদের হাতে নেই। আমরা আপাতত যেটা করেছি সেটা হলো এনসিএলে কেন খেলায়নি এর জন্য দুই কোচকে তলব করা হয়েছে আজকে। বলার পরেও কেন খেলানো হলো না। ওদের তো খেলাতে হবে, না খেলালে ওরা আসবে কি করে। এটি একটি কমন ট্রেন্ড হয়ে গেছে যে লেগ স্পিনারদের আমরা খেলার সুযোগ করে দিচ্ছি না, আরো কয়েকটি বিষয় পজিশন নিয়ে আছে।’

এসব কারণেই এবারের বিপিএলটাকে বিসিবি নিয়েছে টেস্ট কেস হিসেবে। নিজেদের মত করে খেলোয়াড়দের খেলানোর চিন্তা তাদের। পাপন বলেন, ‘এই কারণে এবারের বিপিএলে একটু টেস্ট ব্যাসিসে দেখতে চাইছিলাম। যেহেতু আমাদের সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে, সেখানে খেলোয়াড় পাই কি না।’

এনসিএল হোক কিংবা বিপিএল হোক- লেগ স্পিনার থাকলে তাকে অবশ্যই খেলাতে হবে। এ কথা জোর দিয়ে বললেন বিসিবি সভাপতি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘প্রথম কথা হচ্ছে স্কোয়াডে (লেগ স্পিনার) থাকতে হবে। একাদশে এক যদি একজন স্থানীয় লেগ স্পিনার থাকে, অবশ্যই তাকে খেলাতে হবে। বাইরের প্লেয়ারদের মধ্যে ফাস্ট বোলার যারা ১৪০ কিমি গতিতে বল করে এ ধরনের বোলাদের নেয়ার চেষ্টা করব। অদেরকে আমরা খেলাব।’

বিশ্বকাপের প্রস্তুতির লক্ষ্যেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান পাপন। তিনি বলেন, ‘মূলতঃ এইবারের জিনিসটা হচ্ছে প্রস্তুতি। গত বিশ্বকাপ পর্যন্ত এক রকম হয়েছে। এখন কিন্তু, আমরা একরকম যাচ্ছি না। ওই সময়ের সব সিদ্ধান্ত ছিল শর্টটার্ম। এখন আমরা লংটার্ম চিন্তা করছি। আমাদের ২০২১ সালে যে বিশ্বকাপ হবে সেটার ট্রায়াল হবে কখন? আমরা তো এই বিশ্বকাপের আগে ট্রায়াল দিতে পারিনি। একটা বৈশ্বিক আসরে নতুন নতুন ছেলে নামানো, লেগ স্পিনার ট্রাই করা এগুলা সম্ভবই না। কারণ আমরা তো দেখিইনি এদের। এখন থেকে আমরা প্রতিটা খেলায় বেশ কিছু নতুন ছেলেকে ট্রাই করব। আমাদের লেগ স্পিনার যদি থাকে দেশে ওরা কেমন আছে ওটা আমরা দেখব। অলরেডি আপনারা দেখছেন, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একটা লেগ স্পিনার নামিয়েছি। যদি ফাইনাল সম্ভব হতো, সেখানেও নামাতাম।’

আইএইচএস/এমকেএইচ