বিপিএল খেলোয়াড় তৈরির জায়গা নয় : সাকিব

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:১০ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

বাংলাদেশ দলে একজন ভালোমানের লেগস্পিনারের হাহাকার বহুদিনের। টুকটাক এক দুজন আসেন, তারাও বেশিদিন টিকতে পারেন না। লেগস্পিনার বের হবে কি করে, ঘরোয়া লিগে যে সুযোগই দেয়া হয়না তাদের!

লেগস্পিনারদের মনে করা হয় ‘সাদা হাতি’। তাদের পোষা খুব কঠিন। কোনো একজন লেগস্পিনার যেমন একাই একটি ম্যাচ ঘুরিয়ে দিতে পারেন, তেমনি কোনো ম্যাচে উদারহস্তে রান বিলিয়ে দলকে হারিয়েও দিতে পারেন। সেই ঝুঁকিটা জেনেই দলগুলো খেলিয়ে থাকে লেগিদের। তবে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে কোনো দল এই ঝুঁকিটা নিতে চায় না।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাই এবার নতুন এক বুদ্ধি বের করেছে। আসন্ন বিপিএলে প্রতি দলে একজন করে লেগস্পিনার এবং তাদের চার ওভার করানো বাধ্যতামূলক করে দিয়েছে তারা।

বিসিবির এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করলেন বাংলাদেশ দলের টেস্ট এবং টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। বিপিএলের মতো আন্তর্জাতিক মানের একটি টুর্নামেন্টকে খেলোয়াড় গড়ে তোলার মঞ্চ বানানোর যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন তিনি।

সম্প্রতি বাংলাদেশের একটি জাতীয় দৈনিককে দেয়া সাক্ষাতকারে সাকিব বলেন, ‘আমার মনে হয় লেগস্পিনাারদের আত্মবিশ্বাস এবং ধারাবাহিকতা তৈরি করতে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বেশি ওভার বল করা উচিত। বিপিএল আন্তর্জাতিক মানের একটি টুর্নামেন্ট, যেখানে আপনি এমন পরিস্থিতিতে পড়বেন, যেমনটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেখা যায়। এখানে বিদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে একই ড্রেসিংরুমে থাকবেন আপনি। খেলোয়াড় তৈরি করার জায়গা তো এটা নয়।’

দীর্ঘদিন ধরে লেগস্পিনার না পাওয়াতেই তাড়াহুড়ো করে একটি কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে বোর্ড, উপলব্ধি সাকিবের। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের ভাষায়, ‘অনেক বছর ধরে আমরা সিনিয়র দলে একজন লেগস্পিনার পাচ্ছি না। তবে হঠাৎই সিদ্ধান্ত নেয়া হলো, বিপিএলে সাতজন লেগস্পিনার খেলবে। এমন সিদ্ধান্ত কিছুটা বিস্ময়করই। তবে আমি এটাও মনে করছি, বোর্ড ভালো মনে করেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

এমএমআর/এমকেএইচ