খুলনার কাছে পাত্তাই পেল না চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৪১ এএম, ২০ অক্টোবর ২০১৯

ব্যাটিং লাইনআপ- ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, এনামুল হক বিজয়, মোহাম্মদ মিঠুন, নুরুল হাসান সোহান; বোলিং লাইনআপ- মোস্তাফিজুর রহমান, আল-আমিন হোসেন, মেহেদি হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন। সঙ্গে ঘরোয়া ক্রিকেটের দুই কিংবদন্তি ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক ও তুষার ইমরান।

জাতীয় ক্রিকেট লিগে খুলনা বিভাগের আড়ালে যেন খেলেছে জাতীয় দলের ছায়া দল। এমন একাদশ নিয়ে খেলতে নামলে, প্রতিপক্ষ যারাই হোক না কেন- যে কেউ বাজি ধরে বলে দেবে জয়ী দলের নাম। এর প্রমাণ মিলল জাতীয় লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডেই।

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী বিভাগকে পাত্তাই দিল না খুলনা বিভাগ। মুশফিকুর রহীম, নাজমুল হোসেন শান্ত, জুনায়েদ সিদ্দিকী, ফরহাদ রেজা, তাইজুল ইসলাম, সানজামুল ইসলাম, শফিউল ইসলামদের নিয়ে গড়া রাজশাহী বিভাগও ছিলো যথেষ্ঠ শক্তিশালী। তবু তারা পেরে ওঠেনি খুলনার বিপক্ষে।

নিজেদের ঘরের মাঠ শেখ আবু নাসের ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রাজশাহী বিভাগকে ৭ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম স্তরের শীর্ষস্থান আরও পাকাপোক্ত করলো খুলনা। দুই ম্যাচে ১ জয় ও ১ ড্রতে তাদের পয়েন্ট এখন ১৩.৭। প্রথম রাউন্ডে করা ড্রতে রাজশাহীর সংগ্রহ ৪.৬১ পয়েন্ট।

আল-আমিন হোসেনের বিধ্বংসী বোলিংয়ে ম্যাচের তৃতীয়দিনই জয়ের সুবাস পাচ্ছিল খুলনা। রাজশাহীকে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১৭০ রানে অলআউট করে ফেলায় তাদের সামনে লক্ষ্য দাঁড়িয়েছিল ১২৩ রানের। যা তাড়া করতে নেমে তৃতীয় দিন ১ উইকেট হারিয়ে ১৫ রান করেছিল খুলনা।

আজ (রোববার) ম্যাচের শেষদিন দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন বাঁহাতি ওপেনার সৌম্য সরকার। ওপেনার এনামুল হক বিজয় (৪) ও ফর্মে থাকা ইমরুল কায়েস (২২) ব্যর্থ হলে মোহাম্মদ মিঠুনকে নিয়ে তৃতীয় উইকেটে ৬৬ রানের জুটি গড়েন সৌম্য।

পরে মিঠুন ২৭ রান করে ফিরে গেলেও, নিজের সহজাত ব্যাটিংয়ে মাত্র ৫৯ বলে ৫০ রান করে অপরাজিত থাকেন সৌম্য। তার ব্যাট থেকে আসে ৩টি করে চার ও ছয়ের মার। সৌম্যর অপরাজিত ৫০ ও মেহেদি হাসান মিরাজের ৮ বলে ১৪ রানের ইনিংসে ভর করে ৭ উইকেটের সহজ জয় পেয়েছে খুলনা বিভাগ।

প্রথম ইনিংসে ৯৭ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলকে ৪৮ রানের লিড এনে দেয়ায় ম্যাচ সেরার পুরষ্কার জিতেছেন খুলনার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কাজী নুরুল হাসান সোহান।

এসএএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]