নতুন বিতর্কে জড়ালেন মিসবাহ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১৬ পিএম, ০৭ নভেম্বর ২০১৯

সংকটময় মুহূর্তে জাতীয় দলের প্রধান কোচ ও প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল সাবেক অধিনায়ক মিসবাহ উল হককে। দুই পদের একটিতেও ছিল না তেমন কোনো অভিজ্ঞতা, তার ওপর পরিস্থিতিটাও প্রতিকূল- স্বাভাবিকভাবেই মিসবাহকে নিয়ে হয়েছে নানান সমালোচনা ও বিতর্ক।

বিতর্ক পাশ কাটিয়ে দলের দায়িত্ব নিয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে দলকে ওয়ানডে সিরিজ জিতিয়েছিলেন মিসবাহ। কিন্তু এরপর থেকে আবার ব্যর্থতার বৃত্তে বন্দি। লঙ্কানদের কাছে টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে চলতি সিরিজেও দাঁড়াতে পারছে না পাকিস্তান।

আর এরই মধ্যে এবার নতুন বিতর্কে জড়াচ্ছে পাকিস্তানের হেড কোচ ও নির্বাচকের নাম। দেশটির ঘরোয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট পাকিস্তান সুপার লিগের দল ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের কোচ হতে যাচ্ছেন মিসবাহ। ডিন জোনসকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়ার পর মিসবাহকে নতুন কোচ হিসেবে ঘোষণা দেয়ার অপেক্ষায় রয়েছে ইসলামাবাদ।

তবে জাতীয় দলের প্রধান কোচ কীভাবে আরেকটি ঘরোয়া দলের কোচের দায়িত্ব নিতে পারেন? এ প্রশ্নে সমালোচিত হচ্ছেন মিসবাহ। বিশেষ করে পিএসএলের অন্য পাঁচ দলের মালিকরা তুলেছেন মিসবাহর বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ।

এ বিতর্কের শুরুটা হয়েছে ডিন জোনস এক ভিডিওবার্তার মাধ্যমে নিজের চাকরিচ্যুত হওয়ার খবর জানানোর পর। বিশেষ করে তার অধীনে দুটি শিরোপা জেতার পরও, ইসলামাবাদ কর্তৃপক্ষ আর তাকে দায়িত্বে রাখছে না বিধায় অবাকই হয়েছে সবাই।

এদিকে জোনসকে সরালেও এখনও মিসবাহকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের কোচ হিসেবে ঘোষণা দেয়নি ইসলামাবাদ। তবে মিসবাহ পাকিস্তানের কোচের দায়িত্ব নেয়ার আগে থেকেই, তার সঙ্গে কথা বলে রেখেছিল ইসলামাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজি। যার ধারাবাহিকতায় আগামী পিএসএলেই দায়িত্ব বুঝে নেয়ার কথা রয়েছে মিসবাহর।

পিএসএলের অন্যান্য ফ্র্যাঞ্চাইজিরা মিসবাহর এ দায়িত্বের বিষয়ে দ্বিমত পোষণ করলেও, ক্রিকেট বোর্ডকে পাশে পাচ্ছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক। বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াসিম খান মনে করছেন মিসবাহ যদি পিএসএলের দায়িত্ব নেয়, তাহলে সেটি পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্যই মঙ্গলজনক হবে।

এসএএস/বিএ