পোর্টারফিল্ডের ১১ বছরের দায়িত্বের অবসান, নতুন নেতা পেল আইরিশরা

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪৯ পিএম, ০৮ নভেম্বর ২০১৯

একটি দলের সাফল্য ব্যর্থতার দায় পুরোপুরিই বর্তে অধিনায়কের কাঁধে। অধিনায়ক বদল তাই খুব স্বাভাবিক এক রীতি। তবে আয়ারল্যান্ড বোধ হয় এতদিন সেই রীতির বিপরীত স্রোতেই চলেছে।

উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডকে সেই ২০০৮ সালে ট্রেন্ট জনসনের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছিল ক্রিকেট আয়ারল্যান্ড। এরপর থেকে তিনিই নেতৃত্বে। দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ২৫৩টি ম্যাচে।

এর মধ্যে ছিল দুটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ, পাঁচটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তবে অধিনায়ক হিসেবে পোর্টারফিল্ডের সবচেয়ে বড় পাওয়া বোধ হয় টেস্ট মর্যাদাই। ২০১৮ সালে তার নেতৃত্বেই দেশের ইতিহাসের প্রথম টেস্ট খেলে আইরিশরা।

৩৫ বছর বয়সী পোর্টারফিল্ড নেতৃত্ব থেকে অব্যহতি নেয়ায় নতুন অধিনায়কও বেছে নিয়েছে আয়ারল্যান্ড। দায়িত্ব পেয়েছেন ২৮ বছর বয়সী অ্যান্ড্রু বালবির্নি। ২০১০ সালে অভিষেকের পর থেকে দেশের হয়ে ১২৩টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি।

তবে বালবির্নি পোর্টারফিল্ডের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নিচ্ছেন শুধু টেস্ট আর ওয়ানডের। টি-টোয়েন্টিতে অধিনায়ক হিসেবে থাকছেন গ্যারি উইলসনই।

BALBIRNI.jpg

দায়িত্ব নেয়ায় বালবির্নি হবেন আয়ারল্যান্ডের টেস্ট ইতিহাসের দ্বিতীয়। দেশের ওয়ানডে ইতিহাসেরও মাত্র পঞ্চম অধিনায়ক ২০১০ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডকে নেতৃত্ব দেয়া বালবির্নি।

নতুন দায়িত্ব পেয়ে রোমাঞ্চিত বালবির্নি বলেন, ‘দেশের অধিনায়ক হিসেবে আমাকে ডাকায় খুবই সম্মানিত বোধ করছি। সামনে আমাদের ব্যস্ত বছর কাটবে। আমি খুবই রোমাঞ্চ অনুভব করছি। আমার জন্য এটা খুব গর্বের মুহূর্ত।’

এদিকে নেতৃত্ব ছাড়লেও এখনই ক্রিকেট ছাড়ার মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন না পোর্টারফিল্ড। দায়িত্ব ছাড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটা দুর্দান্ত একটা ভ্রমণ ছিল আমার। গত সাড়ে ১১ বছরে নিজের দেশকে নেতৃত্ব দিতে পারা আমার জন্য দারুণ সম্মানের ছিল। আমি মনে করছি, এখনই নেতৃত্ব ছাড়ার সঠিক সময়। কেননা সামনে ওয়ানডে লিগ শুরু হবে। বালবো (বালবির্নি) নিজেকে গুছিয়ে নিতে সময় পাবে। আমার মনে হয় বালবির্নি এই পদে দারুণ পছন্দ।’

এমএমআর/এমএস