সাদা পোশাকে টাইগারদের ১৯ বছর

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫৫ এএম, ১০ নভেম্বর ২০১৯

দেখতে দেখতে টেস্ট আঙিনার ছোট্ট শিশু বাংলাদেশ আজ পূরণ করেছে ১৯টি বছর। কিশোর বয়স শেষ করে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন যুবক। ২০০০ সালের ১০ নভেম্বর তারিখে ভারতের বিপক্ষে শুরু হয়েছিল সাদা পোশাকে বাংলাদেশের যাত্রা, যা আজ পূরণ করলো ১৯ বছর।

তবে ১৯ পেরিয়ে ২০ বছর শুরু করতে যাওয়ার আগে যে উন্নতি বা সাফল্যের প্রয়োজন ছিলো, তার ধারেকাছেও যেতে পারেনি বাংলাদেশ টেস্ট দল। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বেশ কয়েকবছর ধরেই উদীয়মান শক্তিতে পরিণত হলেও, টেস্ট ক্রিকেট যেনো এখনও শিক্ষানবিশ সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীমরা।

দীর্ঘ প্রায় দেড় যুগের পথচলায় বাংলাদেশ দল টেস্ট খেলেছে ১১৫টি। যাতে জয় মাত্র ১৩টিতে, ড্র হয়েছে আরও ১৬টি। পরাজয়ের গ্লানিই মিলেছে বাকি ৮৬ টেস্টে। তবে বাংলাদেশের টেস্ট অধ্যায়কে দুই ভাগে ভাগ করলে খানিক ভদ্রস্থ হতে পারে এই পরিসংখ্যান।

প্রথম ১২ বছর তথা এক যুগকে এক পাশে এবং পরের ৭ বছরকে অন্য পাশে রেখে হিসেব করলে দেখা যায়: প্রথম ১২ বছরে ৭৩ ম্যাচ খেলে মাত্র ৩টিতে জিতেছিল বাংলাদেশ, ড্র হয়েছিল ৭টি ম্যাচ। অন্যদিকে পরের ৭ বছরে খেলা ৪২ ম্যাচে জয় ১০টি এবং ড্র মিলেছে আরও ৯টি ম্যাচে।

এই পথচলায় বাংলাদেশের হয়ে অন্তত ১টি হলেও টেস্ট খেলেছেন ৯৫জন ক্রিকেটার। সবচেয়ে বেশি ৬৭টি ম্যাচ লেখা হয়েছে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীমের নামের পাশে। অন্তত একটি ম্যাচ খেলেছেন ৯ জন খেলোয়াড়।

বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রান তামিম ইকবালের। দেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে নাম লিখিয়েছেন চার হাজারি ক্লাবে। ৫৮ ম্যাচে ৯ সেঞ্চুরিতে তার সংগ্রহ ৪৩২৭ রান। আর বল হাতে সর্বোচ্চ উইকেট সাকিব আল হাসানের। তিনিও একমাত্র বোলার হিসেবে নিয়েছেন দুই শতাধিক উইকেট। তার নামের পাশে উইকেটসংখ্যা ২১০টি।

একনজরে দেখে নেয়া যাক টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য পরিসংখ্যান:

ম্যাচ - ১১৫, জয় - ১৩, ড্র - ১৬;
বড় ব্যবধানে জয় - ইনিংস ও ১৮৪ রানের ব্যবধানে, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ (২০১৮)
সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ - ৬৩৮/১০, প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা (২০১৩)
সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ - ৪৩/১০, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ (২০১৮)

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান
১. তামিম ইকবাল - ৪৩২৭ রান
২. মুশফিকুর রহীম - ৪০২৯ রান
৩. সাকিব আল হাসান - ৩৮৬২ রান
৪. হাবিবুল বাশার - ৩০২৬ রান
৫. মোহাম্মদ আশরাফুল - ২৭৩৭ রান

বাংলাদেশের পক্ষ সর্বোচ্চ রানের ইনিংস
১. মুশফিকুর রহীম - ২১৯*, প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে (২০১৮)
২. সাকিব আল হাসান - ২১৭, প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড (২০১৭)
৩. তামিম ইকবাল - ২০৬, প্রতিপক্ষ পাকিস্তান (২০১৫)
৪. মুশফিকুর রহীম - ২০০, প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা (২০১৩)
৫. মোহাম্মদ আশরাফুল - ১৯০, প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা (২০১৩)

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেট
১. সাকিব আল হাসান - ২১০ উইকেট
২. তাইজুল ইসলাম - ১০৫ উইকেট
৩. মোহাম্মদ রফিক - ১০০ উইকেট
৪. মেহেদি হাসান মিরাজ - ৮৯ উইকেট
৫. মাশরাফি বিন মর্তুজা - ৭৮ উইকেট

বাংলাদেশের পক্ষে সেরা বোলিং ফিগার
১. তাইজুল ইসলাম: ১৬.৫-৭-৩৯-৮, প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে (২০১৪)
২. সাকিব আল হাসান: ২৫.৫-৭-৩৬-৭, প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড (২০০৮)
৩. মেহেদি হাসান মিরাজ: ১৬-১-৫৮-৭, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ (২০১৮)
৪. এনামুল হক জুনিয়র: ৩৬-৯-৯৫-৭, প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে (২০০৫)
৫. শাহাদাত হোসেন রাজীব: ১৫.৩-৮-২৭-৬, প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা (২০০৮)

বাংলাদেশের পক্ষে ম্যাচে সেরা বোলিং
১. মেহেদি হাসান মিরাজ: ৩৬-৩-১১৭-১২, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ (২০১৮)
২. মেহেদি হাসান মিরাজ: ৪৯.৩-৪-১৫৯-১২, প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড (২০১৬)
৩. এনামুল হক জুনিয়র: ৭৩-১৭-২০০-১২, প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে (২০০৫)
৪. তাইজুল ইসলাম: ৬৮.১-১৫-১৭০-১১, প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে (২০১৮)
৫. সাকিব আল হাসান: ৫৯-১৬-১২৪-১০, প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে (২০১৪)

এসএএস/এমএস