সুপ্রিম কোর্টকে ‘কাঁচকলা’ দেখাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে সৌরভ গাঙ্গুলিরা

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৫২ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৯

প্রায় তিন বছর অপেক্ষার পর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড নির্বাচিত কমিটি পেলো। যার সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন সাবেক অধিনায়ক, কলকাতার মহারাজ খ্যাত সৌরভ গাঙ্গুলি। কিন্তু দায়িত্ব নিলে কি হবে, মাত্র ১০ মাস পরই যে আবার তাকে বিসিসিআইর সভাপতির পদ ছাড়তে হবে!

বিসিসিআই সংস্কারের জন্য ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট নিয়োগকৃত বিচারপতি আরএম লোধা কমিটি যে সুপারিশ করেছে, সেই আলোকে একজন ক্রিকেট প্রশাসক ৩ বছরের বেশি যে কোনো পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করতে পারবে না। পরবর্তী তিন বছরের জন্য তাকে ‘কুলিং অফে’ যেতে হবে। এরপর আবার তিনি ক্রিকেট প্রশাসনে যুক্ত হতে পারবেন।

ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের (সিএবি) দায়িত্ব পালনকালেই বিসিসিআই সভাপতি হলেন সৌরভ। লোধা কমিটির সুপারিশে বিসিসিআইয়ের সংশোধিত গঠনতন্ত্রে কুলিং অফে যাওয়ার যে ধারা, সে অনুযায়ী মাত্র ১০ মাস পরেই সৌরভকে ক্রিকেট প্রশাসকের সব দায়িত্ব ছেড়ে দিতে হবে।

কিন্তু বিসিসিআইয়ের মসনদে বসার এক মাস যেতে না যেতেই সৌরভ গাঙ্গুলি কমিটি হাত দিতে যাচ্ছে বিসিসিআইয়ের গঠনতন্ত্রে। সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃক নিয়োগকৃত আরএম লোধা কমিটির সুপারিশে গঠনতন্ত্রে যে সংস্কার আনা হয়েছে তার পরিবর্তনে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে। এতেকরে সৌরভের মেয়াদ ১০ মাস নয়, পূর্ণ তিন বছরই হতে যাচ্ছে হয়তো।

বিসিসিআইয়ের নির্বাচিত কমিটি এরই মধ্যে সংবিধান সংশোধনের উদ্যোগ নিয়েছে। ভারতীয় ক্রিকেটে এখন এটাই জোর গুঞ্জন। ১ ডিসেম্বর মুম্বাইয়ে বিসিসিআইয়ের সাধারণ সভাতেই পরিষ্কার হয়ে যাবে, সৌরভের কার্যকালের মেয়াদ হচ্ছে কতদিনের। বোর্ড সূত্রের খবর, আগামী তিন বছর সৌরভকে বোর্ড প্রেসিডেন্ট ও জয় শাহকে সচিব পদে বহাল রাখার জন্য সংবিধান সংশোধন করার উদ্যোগ নেওয়া হবে ওই সভাতেই।

ক্রিকইনফোসহ বেশ কয়েকটি মিডিয়া জানাচ্ছে, শুধু সভাপতির মেয়াদই নয়, আরএম লোধা কমিটির সুপারিশে সংস্কার হওয়া গঠনতন্ত্রের বেশ কয়েকটি ধারায় পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে বিসিসিআইয়ের নতুন কমিটি। কি পরিবর্তন আনা হবে? সৌরভ গাঙ্গুলিরা চাচ্ছেন, পুরনো গঠনতন্ত্রকেই ফিরিয়ে আনা।

বোর্ড প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসার পর একের পর এক নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন সৌরভ। টেস্ট ক্রিকেটের গৌরব ফেরাতে দিবা-রাত্রির টেস্ট চালু করতে যাচ্ছন। ২২ নভেম্বর ইডেন গার্ডেন্সে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারতের মাটিতে প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্টের গোলাপি বল মাঠে গড়াবে।

শুধু তাই নয়, সৌরভরা আইপিএল থেকে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিল করে দিয়েছেন। সৌরভ যদি তিন বছর চেয়ারে থাকেন, তাহলে এমনই সব বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত নিতে তাকে দেখা যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। পরিস্থিতি কোন দিকে গড়ায় সেটাই দেখার।

তবে বিসিসিআই সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় মিডিয়া জানাচ্ছে, মুম্বাইয়ের সাধারণ সভার জন্য ভারতের সব রাজ্যের ক্রিকেট সংস্থার কর্তাদের উপস্থিত থাকার জন্য নোটিশ দিয়েছেন জয় শাহ। সে সভায় পুরনো সংবিধান সংশোধন করে নতুন সংবিধান রচনা করা হবে বলেই এখন জোর গুঞ্জন।

আরএম লোধা কমিটির সুপারিশে বিসিসিআইর গঠনতন্ত্রে যে সংস্কার আনা হয়েছিল, সেটা গত বছর পাশ করে সুপ্রিম কোর্ট। আগামী ১ ডিসেম্বর মুম্বাইয়ে বিসিসিআইর সাধারণ সভায় যদি গঠনতন্ত্র সংশোধনের প্রস্তাব পাস করতে হয়, তাহলে সৌরভদের পক্ষে দুই তৃতীয়াংশ ভোট প্রয়োজন।

গঠনতন্ত্র যদি সৌরভদের কমিটি আবারও পরিবর্তন করে নিতে পারে, তাহলে সেটা হবে সুপ্রিম কোর্টকে ‘কাঁচকলা’ দেখানোরই নামান্তার। কারণ, ক্ষমতার চাবিকাঠি হাতে পেয়ে নিজেদের ইচ্ছে এবং সুবিধামত পরিবর্তন করে নেয়া তো সুপ্রিম কোর্টের বিপক্ষে অবস্থান নেয়া।

আইএইচএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]