চাহারকে ‘প্রথম’ ঘোষণা দিয়ে নেটিজেনদের তোপে বিসিসিআই

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০৪ পিএম, ১১ নভেম্বর ২০১৯

রোববার রাতে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন ভারতের পেসার দ্বীপক চাহার। মাত্র ৭ রান খরচায় নিয়েছেন ৬টি উইকেট। যা কি না আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সেরা বোলিং ফিগারের বিশ্ব রেকর্ড।

এই জাদুকরী বোলিং করার দিনে পুরুষ ক্রিকেটে ভারতের প্রথম বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টি হ্যাটট্রিকও করেছেন চাহার। নিজের তৃতীয় ওভারের শেষ বল ও চতুর্থ ওভারের প্রথম দুই বলে নিয়েছেন টানা তিন উইকেট।

হ্যাটট্রিক পূরণ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই চাহারকে ‘ভারতীয় হিসেবে প্রথম হ্যাটট্রিক করা’ বোলার ঘোষণা দিয়ে টুইটারে পোস্ট করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। যা আসলে ঠিক নয়।

কেননা ভারতীয় নাগরিক হিসেবে চাহারের সাত বছর আগেই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে হ্যাটট্রিক করেছেন ভারতের নারী দলের বাঁহাতি স্পিনার একতা বিশ্ত। ২০১২ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এ কীর্তি গড়েছিলেন একতা।

যা মনে করিয়ে দিতে একদমই সময় নেননি নেটিজেনরা। এ ভুল ধরিয়ে দেয়ার পাশাপাশি কেউ কেউ আবার এক হাত নিচ্ছেন বিসিসিআইয়ের। যাদের মতে শুধুমাত্র নারী বলে একতার কীর্তিকে মূল্যায়ন করেনি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

এদের মধ্যে রয়েছেন জনপ্রিয় ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোর সাংবাদিক অন্বেষা ঘোষও। বিসিসিআইয়ের টুইটটি রিটুইট করে তিনি লিখেন, ‘দ্বীপক চাহার আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে হ্যাটট্রিক করা প্রথম ভারতীয় পুরুষ। তার আগে নারী দলের বাঁহাতি স্পিনার একতা বিশ্ত ২০১২ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই কীর্তি গড়ে রেখেছেন।’

ডোনাল্ড ডি সুজা নামের একজন লিখেন, ‘বিসিসিআই, তুমি ভুল। ভারতের পক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি হ্যাটট্রিক করা বোলার হলে একতা বিশ্ত। শুধুমাত্র নারী হওয়ার কারণে তোমরা তার কীর্তি ভুলে যাচ্ছো। অথচ একজন পুরুষ এই সাফল্য পাওয়ার সাত বছর আগেই, ২০১২ সালে একতা এটি করেছিলেন।’

কিরন স্বজন নামক টুইটার ব্যবহারকারী লিখেন, ‘বিসিসিআইয়ের এ কেমন নির্বোধের মতো কাণ্ড! ভারতের হয়ে এই কীর্তি আরও ৭ বছর আগেই করেছেন একতা বিশ্ত। তিনিও একজন ভারতীয় ক্রিকেটার।’

এসএএস/পিআর