১৬ বছর বয়সেই টেস্ট অভিষেক, ইতিহাস গড়ছে পাকিস্তানি পেসার

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩২ পিএম, ২০ নভেম্বর ২০১৯

পাকিস্তান এই কাজটা খুব ভালো করেই পারে। এর আগেও হাসান রাজা কিংবা মুস্তাক মুহাম্মদদের খুব কম বয়সে অভিষেক ঘটিয়ে চমকে দিয়েছিল বিশ্বকে। তবে এবার যে চমক তারা উপহার দিচ্ছে, সেটাও রীতিমত ইতিহাস। মাত্র ১৬ বছর বয়সী এক ক্রিকেটারকে তারা অভিষিক্ত করাতে যাচ্ছে গ্যাবা টেস্টে।

এখনও স্কুলের গণ্ডিই পার হয়নি ১৬ বছর বয়সী ওই কিশোরের। নাম নাসিম শাহ। পাকিস্তান টেস্ট অধিনায়ক আজহার আলি নিশ্চিত করেছেন, ১৬ বছর বয়সী পেস বোলার নাসিম শাহকে অভিষেক করানো হবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে।

গ্যাবায় আগামীকাল ভোর থেকে (বাংলাদেশ সময়) শুরু হবে অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান প্রথম টেস্ট। এই টেস্ট ম্যাচটি আবার বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তুর্ভূক্ত। এই ম্যাচেই কিশোর নাসিম আলির অভিষেক করিয়ে দিচ্ছে পাকিস্তান। তিনি বল করতে দৌড়ে আসবেন বিশ্বের এক নম্বর টেস্ট ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথ, কিংবা তার সব ভয়ঙ্কর সতীর্থের বিরুদ্ধে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে তার চেয়ে আর কোনো ক্রিকেটারই এত কম বয়সে অভিষিক্ত হয়নি। অসিদের বিপক্ষে সবচেয়ে কম বয়সে অভিষেক হয়েছিল ভারতের হরভজন সিংয়ের। ১৭ বছর ২৬৫ দিনে অসিদের বিপক্ষে ভারতীয় স্পিনারের অভিষেক ঘটেছিল ১৯৯৮ সালে।

পাকিস্তান অধিনায়ক আজহার আলি তার অভিষেকের কথা জানিয়ে বলেন, ‘আমরা অবশ্যই তাকে খেলানোর চিন্তা করছি। তার বোলিং সত্যিই দুর্দান্ত। আমরা হয়তো আগামীকাল ম্যাচের আগে একাদশ ঘোষণা করবো। তবে, সেই একাদশে সে থাকতেছে, এটা নিশ্চিত।’

আজহার আলি নাসিম শাহের প্রশংসা করে বলেন, ‘এত কম বয়সে খুব কম ক্রিকেটারই এমন একটা মানের পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে। তবে কিছু ব্যতিক্রম তো থাকেই। তিনি তাদের মধ্যে একজন। আমরা সবাই তার দুর্দান্ত সফল একটি ক্যারিয়ারের অপেক্ষায়। আমি তাকে যখন প্রথম দেখি, তখনই খুব অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। বলের ওপর তার নিয়ন্ত্রণ, গতি এবং টেম্পারমেন্টের ওপর তার যে নিয়ন্ত্রণ- তা দেখে যে কারও অবাক হওয়ার কথা।’

অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক টিম পেইন বলেন, ‘আমি সর্বশেষ কিছুদিন ক্লাব ক্রিকেটে এমন ১৬ বছর বয়সী ক্রিকেটারের বিপক্ষে খেলেছি। তবে, অবশ্যই টেস্ট ক্রিকেট আলাদা একটা পর্যায়। এখানে ১৬ বছর বয়সী একজনের খেলা অস্বাভাবিকই বটে। তবে তাকে দেখেই মনে হচ্ছে, সে সত্যিই দুর্দান্ত এক প্রতিভা। পাকিস্তান প্রায়ই এ ধরনের ভালো মানের পেসার পেয়ে থাকে। নিঃসন্দেহে সে হবে পাকিস্তানের পেস বোলার উৎপাদনের ইতিহাসে অন্যতম সেরা একটি রত্ন।’

তবে নাসিম শাহই কিন্তু ইতিহাসে সর্বকনিষ্ট টেস্ট ক্রিকেটার নন। পাকিস্তানের হাসান রাজা ১৯৯৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষিক্ত হন মাত্র ১৪ বছর ২২৭দিন বয়সে। এরপর রয়েছেন পাকিস্তানেরই আরেকজন, মুস্তাক মুহাম্মদ। ১৯৫৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাত্র ১৫ বছর ১২৪ দিন বয়সে টেস্ট অভিষেক হয় তার। তিন নম্বরে রয়েছেন বাংলাদেশের মোহাম্মদ শরীফ। ২০০১ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাত্র ১৫ বছর ১২৮দিন বয়সে অভিষেক হয় তার।

আইএইচএস/পিআর