এটা এক অন্যরকম সম্মান : হাবিবুল বাশার

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১২:১৯ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৯

দেশের ইতিহাসের প্রথম টেস্টের অধিনায়ক দুর্জয়ের কথাই যেন প্রতিধ্বনিত হলো প্রথম হাফ সেঞ্চুরিয়ান হাবিবুল বাশার সুমনের মুখেও। বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট হাফ সেঞ্চুরিয়ান বাশারও সেই প্রথম ম্যাচের খেলোয়াড়দের মিলনমেলা ও আনন্দালোকে উপস্থিত থাকতে পেরে পুলকিত।

জাগো নিউজকে মুঠোফেনে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে আজ (শুক্রবার) সকালে হাবিবুল বাশার বলেন, ‘সত্যিই এক অন্যরকম উৎসব এখন কলকাতায়। নিমন্ত্রণ পেয়ে আর আসতে পেরে খুব ভাল লাগছে। আমার মনে হয় এটা অনেক আন্তরিকতাপূর্ণ উদ্যোগ। এমন এক আয়োজনের উদ্যোগ নিয়ে সৌরভ গাঙ্গুলী আমাদের সবার মন কেড়ে নিয়েছেন। ধন্যবাদ তাকে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সত্যিই খুব এনজয় করছি। কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে বাংলাদেশ আর ভারতের টেস্ট ম্যাচকে স্মরণীয়, উপভোগ্য ও আকর্ষণীয় করে রাখার উদ্যোগটা খুবই প্রশংসনীয়। আমার মনে হয় অভিষেক টেস্ট স্কোয়াডের সবাইকে আমন্ত্রণ জানানো এবং ভারতের সব সাবেক অধিনায়কদের সাথে মিলন মেলায় শরিক হতে পারা অনেক বড় ও সর্বোচ্চ সম্মান। এমন এক আয়োজনের অংশ হতে পেরে সত্যিই অরকম ভাললাগায় আচ্ছন্ন দেহমন।’

গতকাল (বৃহস্পতিবার) পড়ন্ত বিকেলে কলকাতায় পৌঁছেছে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টের বহর। সেখানে তাদেরকে রাখার হয়েছে ‘আইটিসি সোনার’ হোটেলে। সেখানে রাতে বসেছিল অন্যরকম এক মিলনমেলা। আড্ডায় মেতেছিলেন ১৯ বছর আগের সেই দলের সবাই।

নিজেদের আড্ডার খানিক বর্ণনা দিয়ে বাশার আরও বলেন, ‘আড্ডার মধ্য মণি অবশ্য কেউ একা নয়, সবাই কথা বলেছি। লটস অফ ফান, জোকস। আকরাম ভাই, জাভেদ ওমর, রাজিন সালেহ, মেহরাব হোসেন অপি, হাসিবুল হোসেন শান্ত- সবাই গল্প করেছে। পুরনো দিনের সব মজার মজার গল্প। যেন টাইম মেশিনে করে আবার ফিরে যাওয়া। এখনো সবাই আগের মতই আড্ডাবাজ আর হাস্যকৌতুক করতে পারে।’

‘শুধু ধর্মকর্মে একটু বেশি মনোযোগি রাজিন একটু গম্ভীর হয়ে গেছে। না হয় রাজিনও আগে অনেক কৌতুক করতে পারতো। আমাদের হাসাতো, আনন্দ দিত। তারপরও দিয়েছে। আর জাভেদ, শান্ত ও অপি থাকলে যেকোনো পরিবেশ চাঙ্গা হতে বাধ্য। তারা জমিয়ে রাখতে যথেষ্ঠ। গল্প গুজব, হাস্য ক্যেতুক আর পুরনো দিনের কথা ঠিক আগের মত করে উপস্থাপনে তাদের জুরি মেলা ভার। সব মিলে গ্রেট অকেশন। আমরা খুব উপভোগ করছি।’

এআরবি/এসএএস/পিআর