যেসব সবুজ সংকেত পেলে পাকিস্তান যাবে বাংলাদেশ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:১৪ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল পাকিস্তান সফরে যাবে! নাহ, চমকে উঠবেন না, অবাকও হবেন না। কারণ এটা নিশ্চিত নয়। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এখন পর্যন্ত সে ঘোষণা দেননি। আবার টিম বাংলাদেশ পাকিস্তানে খেলতে যাবে না, তাও বলেননি।

শুধু বলেছেন, পর্যবেক্ষক কমিটির রিপোর্ট আগে আসুক। তারপর দেখা যাবে। ‘হ্যাঁ’ না বললেও যেহেতু বিসিবি সভাপতি ‘না’ করেননি, তাই ঐ মন্তব্যের পর মনে হয়েছে, বাংলাদেশ ক্রিকেট দল পাকিস্তানে খেলতে যেতেও পারে।

যত দিন গড়াচ্ছে পাকিস্তান যাবার বিষয়টি নিয়ে গুঞ্জনও ততই বাড়ছে এবং একটা প্রচ্ছন্ন ধারণা জন্মেছে, হয়তো বাংলাদেশ ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তান সফরে যেতে পারে। কারও কারও অবশ্য ধারণা, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে হয়তো পাকিস্তান সফরে পাঠানো হবে না।

আসল ব্যাপার কি? জাতীয় দল কি সত্যিই পাকিস্তান সফর করবে? নাকি যাবে না? এ নিয়ে যখন প্রচুর কথা-বার্তা চলছে, ঠিক তখন মুখ খুললেন বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন। আজ সোমবার বিকেলে সাংবাদিকদের সাথে আলাপে বিসিবি সিইও অনেক কথার ভীড়ে একটি বার্তা দিয়েছেন খুবই পরিষ্কারভাবে।

তার কথা, ‘বাংলাদেশ সরকারের একটি পর্যবেক্ষক দল ইতিমধ্যেই পাকিস্তান ঘুরে এসেছে। পাকিস্তানের নেয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা তারা সরেজমিনে দেখে এসেছেন। তারা একটি রিপোর্ট দেবেন। মূলত সেই রিপোর্টের দিকেই তাকিয়ে বিসিবি। এর সাথে আরও দুটি দিক থেকে সবুজ সংকেতে চোখ বোর্ডের। একটি হলো পাকিস্তানে নিযুক্ত হাই কমিশন এবং যেহেতু সফরটা আইসিসি অনুমোদিত, তাই আইসিসির মতামতও নেয়া হবে।’

মোদ্দা কথা, বাংলাদেশ সরকারের পাঠানো পর্যবেক্ষক দলের পাকিস্তান ঘুরে আসা এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা খুঁটিয়ে দেখার রিপোর্ট এবং পাকিস্তানে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশন ও আইসিসির মতামত নিয়েই চূড়ান্ত হবে পাকিস্তানে যাওয়া না যাওয়া।

তাইতো বিসিবি সিইওর মুখে এমন কথা, ‘বাংলাদেশের একটি সরকারি দল ইতোমধ্যে পাকিস্তান সফর করেছে এবং আমরা তাদের রিপোর্টের অপেক্ষায় আছি। যেহেতু আন্তর্জাতিক ম্যাচ হচ্ছে, তাই আইসিসির সম্পৃক্ততাও রয়েছে এখানে। সব কিছু সবার সাথে আলোচনা করেই একটা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।’

সে সিদ্ধান্তটা কবে নাগাদ নেয়া হবে? এ প্রশ্নর জবাবে বিসিবি সিইওর ব্যাখ্যা, ‘আমরা চেষ্টা করছি যত দ্রুত সম্ভব এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার। সেক্ষেত্রে আমাদের নিরাপত্তা প্রতিনিধি যে দল গিয়েছিলেন পাকিস্তানে, তাদের রিপোর্টটা আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। সেটা হাতে পেলেই আমরা এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেব। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হচ্ছে এবং আমরা এ নিয়ে কাজ করছি।’

এআরবি/এমএমআর/এমকেএইচ