বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে ব্যস্ত বিসিবি, টিকিটের খবর কি?

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:১৮ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানই যেন এখন টক অব দ্য কান্ট্রি। বলিউডের দুই সুপার স্টার সালমান খান এবং ক্যাটরিনা কাইফ এখানে পারফর্ম করবেন। সবচেয়ে বড় কথা, এবারের টুর্নামেন্ট উদ্বোধন করবেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ৮ ডিসেম্বর জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পর্দা উঠবে ৭ম বিপিএল আসরের। সন্ধ্যা সাতটায় একটি বাটন টিপে টুর্নামেন্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে এবারের বিপিএলকে বঙ্গবন্ধুর নামেই উৎসর্গ করা হলো। সে কারণেই মূলতঃ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত থাকবেন এবং সে কারণেই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে জমজমাটভাবে আয়োজনের সর্বোচ্চ প্রস্তুতিক চলছে এখন মিরপুরে।

মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গেলেই আপনার চোখে পড়বে সাজ সাজ রব। তারদিকে কর্মব্যস্ততা। অ্যাকাডেমি মাঠ কিংবা শেরে বাংলার দুই পাশে কিছু ক্রিকেটারের অনুশীলন চোখে পড়বে আপনার। তবে তার চেয়েও যেটা বেশি চোখে পড়বে তা হচ্ছে, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রস্তুতি।

BCB-1

আর মাত্র ৭২ ঘণ্টা পর মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে বেজে উঠবে বিপিএলের জমজমাট লড়াইয়ের নাকাড়া। যদিও টুর্নামেন্ট শুরু হবে ১১ ডিসেম্বর। তার তিনদিন আগেই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়ে যাবে।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ছাড়াও সালমান, ক্যাটরিনা, অরিজিৎ সিং, অনুপম খের, সনু নিগমরে দিয়ে চার থেকে ৫ ঘণ্টার জমকালো উদ্বোধনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বোর্ড।

এখন দলগুলো মাঠে নামার কাজে ব্যাস্ত। বিসিবি ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল ব্যস্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে। তবে, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ৭২ ঘণ্টা আগেও আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি কত টিকিট ছাড়া হবে দর্শকদের জন্য এবং টিকিটের মূল্যই বা কত হবে। যদিও শোনা যাচ্ছে ১০ হাজার, ৫ হাজার ও ১ হাজার টাকার টিকিট ছাড়া হবে।

Stage

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য মঞ্চ তৈরি করা হচ্ছে মাঠের পূর্ব দিকের সাধারণ গ্যালারিকে পেছনে রেখে, অথ্যাৎ পূর্ব দিকের গ্যালারির পুরোটাই ঢাকা পড়ে যাবে মঞ্চের পেছনের পর্দার কারণে। সে কারণেই সাধারণ গ্যালারিতে কোনো ধরনের কোনো টিকিট থাকছে না, কেউ যেতেও পারবে না।

যেহেতু সাধারণ গ্যালারিই পড়ে গেছে মঞ্চের পেছনে, তাই সেখান থেকে কিছুই দেখা যাবে না বিধায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পূর্ব গ্যালারি থাকবে বন্ধ। মাঠের পূর্ব দিকে নির্মীয়মাণ মঞ্চের একদম সামনে প্রধানমন্ত্রীর বসার জন্য বিশেস ব্যবস্থা করা হবে। এবং মাঠের ভেতরেই তিন স্তরে চেয়ার বসানো হবে।

অর্থ্যাৎ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখতে হলে হয়তো মাঠে বসেই দেখতে হবে। উল্টো দিকের ক্লাব হাউজ ও গ্র্যান্ড স্ট্যান্ড থেকে হয়তো দেখা যাবে, তবে সেটা মঞ্চ থেকে অন্তত দেড়শ গজেরও বেশি দুরে। কাজেই ১০ হাজার এবং ৫ হাজার টাকার যে টিকিট ছাড়ার কথা শোনা যাচ্ছে, সেটা নিশ্চিতভাবেই মাঠের ভেতরে যে বসার ব্যবস্থা করা হবে তাদের জন্য।

এআরবি/আইএইচএস/পিআর