নেপালের বিপক্ষেও বড় সংগ্রহ পেল না বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৫৬ এএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯

চলতি সাউথ এশিয়ান গেমসে (এসএ গেমস) পুরুষ ক্রিকেটে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচেই বড় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। কিন্তু মাঠের পারফরম্যান্সে ঠিক লেটার মার্ক পাওয়ার মতো কিছু করতে পারেননি সৌম্য সরকার, নাজমুল হোসেন শান্তরা। সে ধারাবাহিকতা বজায় থাকলো তৃতীয় ম্যাচেও, স্বাগতিক নেপালের বিপক্ষে।

নেপালের কীর্তিপুরে ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটের বিনিময়ে মাত্র ১৫৫ রান করতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। দারুণ বোলিং করা নেপালের ম্যাচ জয়ের জন্য করতে হবে ১৫৬ রান।

দুর্বল মালদ্বীপের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে ১৭৪ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। পরে তাদের অলআউট করতেও ১৯.২ ওভার বোলিং করতে হয়েছিল তানভীর ইসলাম, আফিফ হোসেনকে। দ্বিতীয় ম্যাচে আরেক দুর্বল দল ভুটানকে ২০ ওভারেও অলআউট করতে পারেনি বাংলাদেশ। তারা পুরো ২০ ওভার খেলে ৭ উইকেটে করে ৬৯ রান। সে ম্যাচে ১০ উইকেটের জয় পেয়েছিল নাজমুল শান্তর দল।

আর আজ (শনিবার) আগের দুই প্রতিপক্ষের চেয়ে শক্তিশালী নেপালের বিপক্ষে রীতিমতো খাবি খেয়েছেন সৌম্য, নাইম, সাইফরা। নেপালের অভিজ্ঞ বোলার পরশ খাড়কার প্রথম স্পেলের কোনো জবাবই দিতে পারেনি বাংলাদেশের টপঅর্ডার। নিজের প্রথম ২ ওভারেই সৌম্য, নাইম ও সাইফকে আউট করেন খাড়কা।

আগের দুই ম্যাচে ভালো ব্যাট করলেও, নেপালের বিপক্ষে সৌম্য ও নাইম ৬ রান করে করতে পেরেছেন। রানের খাতাই খুলতে পারেননি সাইফ। মাত্র ১৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। সেখান থেকে দলকে উদ্ধার করেন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ও বাঁহাতি অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ধ্রুব।

প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দিয়ে ইয়াসির আলি রাব্বি ফেরেন ১৫ বলে ১৪ রান করে। পঞ্চম উইকেট জুটিতে ৯৪ রানের জুটি গড়েন আফিফ ও শান্ত। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ৪টি করে চার-ছক্কার মারে ৬০ বলে ৭৫ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন শান্ত। আগ্রাসী খেলা আফিফ ফিফটি পূরণ করেন ২৫ বলে। আউট হওয়ার আগে ৬ চার ও ১ ছয়ের মারে ২৮ বলে ৫২ রান করেন তিনি।

শেষপর্যন্ত ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান করে বাংলাদেশ। ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান খরচায় ৩ উইকেট নেন পরশ খাড়কা। এছাড়া দিপেন্দ্র সিং আইরি নেন ২টি উইকেট।

এসএএস/এমএস