পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে দুই বিস্ময় বালক

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:২৫ পিএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯

জানুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় হতে যাওয়া যুব বিশ্বকাপ ক্রিকেটের জন্য ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। যেখানে ১৬ বছর বয়সী গতি তারকা নাসিম শাহসহ নেয়া হয়েছে আরেক বিস্ময় বালককে। স্কোয়াডে জায়গা পাওয়া ৪ অলরাউন্ডারের একজন হলেন ১৪ বছর বয়সী সেই বিস্ময় বালক মোহাম্মদ শেহজাদ।

ফর্মের চূড়ায় থাকা রোহাইল নাজিরের নেতৃত্বেই বিশ্বকাপে খেলবে পাকিস্তান। বিশ্বকাপে ভালো করার উদ্দেশ্যে শক্তিশালী স্কোয়াডই ঘোষণা করেছে তারা। যেখানে চমক হিসেবেই নেয়া হয়েছে ১৬ বছর বয়সী নাসিম ও ১৪ বছরের মোহাম্মদ শেহজাদকে।

দল ঘোষণার পর সন্তুষ্টি প্রকাশ করে যুব দলের দায়িত্বে থাকা কোচ সালিম জাফর বলেন, ‘আমরা নিবিড় পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে সেরা দলটাই বের করার চেষ্টা করেছি। দলে সুযোগ পাওয়া খেলোয়াড়রা কোচ এবং অধিনায়ককে ভারসাম্যপূর্ণ একাদশ গঠনে ভূমিকা রাখতে পারবে। আশা করি এই দলটা বেশ ভালো করবে।’

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট খেলার কারণে বিশ্ব ক্রিকেটে এখন প্রায় পরিচিত মুখ নাসিম। তবে শেহজাদ পুরোপুরি অচেনা। তিনি মূলত দক্ষিণ পাঞ্জাব থেকে উঠে আসা একজন ব্যাটিং অলরাউন্ডার। চলতি অনূর্ধ্ব-১৬ টুর্নামেন্টে মাত্র ২ ম্যাচেই ১৭৫ রান ও ৬ উইকেট শিকার করেছেন শেহজাদ।

তাকে ভবিষ্যতের আব্দুল রাজ্জাক হিসেবে আখ্যায়িত করে সালিম জাফর বলেন, ‘শেহজাদ পরিপূর্ণ প্যাকেজ। সে ওপেনিং করতে পারে, সঙ্গে মিডিয়াম পেস। তাই আমরা আশা করছি ভবিষ্যতে আব্দুল রাজ্জাকের মতো একজন অলরাউন্ডার হতে পারবে সে। যুব ক্রিকেটই আসলে একজন ক্রিকেটারকে সামনে এগিয়ে দেয়। আমাদের জন্য ম্যাচ জেতা যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি ভবিষ্যতের জন্য যুব ক্রিকেটারদের গড়ে তোলাও সমান প্রয়োজনীয়।’

শেহজাদ ছাড়া দলে অলরাউন্ডার আছেন আব্বাস আফ্রিদি, ফাহাদ মুনির কাশিম আকরাম। আগামী বছরের ১৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে যুব বিশ্বকাপের ২০২০ সালের আসর। বাংলাদেশ, জিম্বাবুয়ে ও স্কটল্যান্ডের সঙ্গে ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে পাকিস্তান। তাদের প্রথম ম্যাচে ১৯ জানুয়ারি, স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে।

যুব বিশ্বকাপে পাকিস্তানের স্কোয়াড
রোহাইল নাজির (অধিনায়ক), আব্দুল ওয়াহিদ বাঙ্গালজাই, হায়দার আলি, মোহাম্মদ শেহজাদ, মোহাম্মদ হারিস, মোহাম্মদ হুরাইরা, মোহাম্মদ ইরদান খান, আব্বাস আফ্রিদি, ফাহাদ মুনির, কাশিম আকরাম, আমির আলি, আরিশ আলি খান, আমির খান, নাসিম শাহ এবং তাহির হুসাইন।

টিম ম্যানেজম্যান্ট
ইজাজ আহমেদ (হেড কোচ এবং ম্যানেজার), ইফতিখার আনজুম (বোলিং কোচ), আব্দুল মাজিদ (সহকারী কোচ), সাবুর আহমেদ (ট্রেইনার), হাফিজ নাইম উর রাসুল (ফিজিও থেরাপিস্ট), উসমান হাশমি (এনালিস্ট), ইম্মাদ আহুমেদ হামিদ (মিডিয়া ম্যানেজার), কর্নেল (অব.) উসমান রিফাত আনসারি (নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক)।

এসএএস/এমএস