বিসিবির এমন সিদ্ধান্তে খুশি মাহমুদউল্লাহ-মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫১ পিএম, ১৩ জানুয়ারি ২০২০

রোববার বোর্ড পরিচালকদের সঙ্গে সাধারণ সভা শেষে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। যার মধ্যে অন্যতম ছিলো তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটে জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের ম্যাচ ফি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত।

বোর্ডের নতুন সিদ্ধান্ত মোতাবেক এখন থেকে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা প্রতি টি-টোয়েন্টি খেলে পাবেন ২ লাখ টাকা করে। প্রতি ওয়ানডের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ৩ লাখ টাকা এবং এক টেস্টের ম্যাচ ফি বাবদ থাকবে ৬ লাখ টাকা করে। সবশেষ বেতন কাঠামোতে টেস্ট ম্যাচে সাড়ে ৩ লাখ, ওয়ানডেতে ২ লাখ ও টি-টোয়েন্টিতে ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা করে ম্যাচ ফি পেতেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

টেস্ট ক্রিকেটে সাড়ে ৩ লাখ থেকে সরাসরি করা হয়েছে ৬ লাখ টাকা। যা পরিষ্কার ইঙ্গিত দেয়, বোর্ড এখন লাল বলের টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি বাড়তি গুরুত্ব দিচ্ছে। বিসিবির এমন সিদ্ধান্তের প্রতি সাধুবাদ জানিয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

বিপিএলের খেলা হলেও যেহেতু জাতীয় দলের ক্রিকেটার, তাই মাশরাফির সংবাদ সম্মেলনে উঠে আসে দেশের ক্রিকেটের সব প্রসঙ্গই। যেখানে তিনি কথা বলেন ম্যাচ ফি বাড়ানোর ব্যাপারেও। টেস্ট তথা তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটে ম্যাচ ফি বাড়ানোর বিষয়ে প্রায়ই একই সুরে কথা বলেছেন মাশরাফির পর সংবাদ সম্মেলনে আসা মাহমুদউল্লাহও।

টেস্টে ম্যাচ ফির সিদ্ধান্তের ইতিবাচক দিকের ব্যাপারে ইঙ্গিত করে মাশরাফি বলেন, ‘এটা (ম্যাচ ফি বাড়ানো) খুব ভালো সিদ্ধান্ত। এর থেকে ভালো সিদ্ধান্ত হয়েছে যে বার্তাটা দেয়া। আমার মনে হয় এটা খুব ভালো সিদ্ধান্ত। যারা তিন ফরম্যাটের জন্য অ্যাভেইলেভেল থাকবে তাদের বেতন বেশি হবে। এমনকি যারা টেস্ট ক্রিকেটকে বেশি প্রাধান্য দেয় তাদের বেতন বেশি হওয়া উচিত। তাহলে হয়তো বা টেস্ট ক্রিকেটের দৃশ্যপট পরিবর্তন হতে পারে। অবশ্যই বিসিবি খুব সুন্দর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ আমরা শুনি যে, অনেকে নাকি টেস্ট খেলতে চায় না... বেতনের ভেতরে থাকলে বোধটা আসবে যে আমি শুধু টেস্ট খেলবো, অন্য সবার থেকে বেশি বেতন পাবো। এটা খুব ভালো সিদ্ধান্ত।’

ম্যাচ ফি বাড়ানো হলে টেস্টের দৃশ্যপট বদলে যেতে পারে বলে মনে করেন মাহমুদউল্লাহও। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এটা খুবই ইতিবাচক একটা দিক। এ সিদ্ধান্ত নেয়ায় বোর্ডকেও ধন্যবাদ। টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি সবারই আগ্রহ আরও বাড়বে। আমি এটা বলবো না যে, আগ্রহ ছিলো না। তবে যেহেতু এটাই আমাদের রুটি-রুজি, আমাদের পারিশ্রমিক এখান থেকেই পাই, তাই ছেলেরা এতে আরও উৎসাহ পাবে। তাই আমি এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাচ্ছি।’

তবে এখনও নতুন বেতন কাঠামো ঠিকভাবে দেখেননি বলে জানান মাহমুদউল্লাহ। পুরোপুরি জানার পর এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে পারবেন উল্লেখ করে জাতীয় দলের সিনিয়র এই ক্রিকেটার বলেন, ‘বেতন-কাঠামোর বিষয়টা আমি এখনও খুব একটা দেখিনি। কারণ আজকে ছিল। এটা নিয়ে কোনো কথাও হয়নি। তাই এখন কিছু না বলাই ভালো। আগে পুরোপুরি জানতে হবে বিষয়টা।’

এসএএস/এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]