১১২ রানের পুঁজি নিয়েও দারুণ লড়াই করলো বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪০ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২০

লড়াইয়ের পুঁজি সর্বসাকুল্যে ১১২ রান। ৫০ ওভারের ম্যাচে একেবারেই নগণ্য সংগ্রহ। এই সংগ্রহ নিয়েও শেষ পর্যন্ত দারুণ লড়াই করেছে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটাররা। যদিও শেষ মুহূর্তে নিউজিল্যান্ডের মিডল অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যানের দৃঢ়তায় বাংলাদেশকে হারতে হলো ৪ উইকেটের ব্যবধানে।

জোহানেসবার্গে সেন্ট জোন্স কলেজের রাইস ফিল্ডে জয়ের জন্য ১১৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতা নামা কিউই যুবাদের ৬৩ রানেই ৬টি উইকেট তুলে নেয় বাংলাদেশের যুবারা। ৬৩ রানে প্রতিষ্ঠিত ৬জন ব্যাটসম্যানকে তুলে নেয়ার অর্থ, ১১২ রান নিয়েও দারুণ এক জয়ের সুঘ্রাণ পাচ্ছিল আকবর আলি অ্যান্ড কোং।

কিন্তু নিউজিল্যান্ড অনুর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক জেসে টাসকফের অপরাজিত ৪১ রানের দৃঢ়তাপূর্ণ ইনিংসের ওপর ভর করেই শেষ পর্যন্ত জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে নিউজিল্যান্ড। ৬৩ রানে ৬ উইকেট পড়ার পর কুইন সানডেকে নিয়ে ম্যাচ শেষ করেন টাসকফ। সানডে অপরাজিত থাকেন ১৯ রানে।

২৯.৩ ওভারেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় নিউজিল্যান্ড। বাংলাতেশের অকেশনাল বোলার তানজিদ হাসানের আনকোরা বোলিংয়ের সামনেই শুরুতে ধরাশায়ী হতে শুরু করেছিল নিউজিল্যান্ড অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ব্যাটসম্যানরা। ৮.৩ ওভার বল করে ৩০ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তানজিদ হাসান তামিম। এছাড়া রাকিবুল হাসান নেন ২টি এবং শরিফুল ইসলাম নেন ১টি উইকেট। নিউজিল্যান্ডের ওপেনার রিস মারিউ করেন ৩২ রান।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ২৯ ওভারে মাত্র ১১২ রান তুলতেই অলআউট হয়ে যায়। কিউই পেসার জোয়ি ফিল্ড এবং আদিত্য অশোকের দাপটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা চোখে শর্ষে ফুল দেখতে শুরু করে। ফিল্ড নেন ৪ উইকেট এবং অশোক নেন ৩ উইকেট।

মিডল অর্ডারে তৌহিদ হৃদয় করেন সর্বোচ্চ ৩৬ রান। এছাড়া আকবর আলি ২৩ এবং শামিম হোসেন করেন ২০ রান। বাকি ব্যাটসম্যানদের আর কেউই দুই অংকের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি। ডাক মারেন টপ অর্ডারের তিনজন ব্যাটসম্যান। এক পর্যায়ে ৯ রানে তিনটি, ১১ রানে ৪টি এবং ২৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে টাইগার যুবারা।

আইএইচএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]