জিতলো ভারত : খুশিতে উল্লাস শোয়েবের

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩৩ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০২০

দু’দেশের মধ্যে বৈরি সম্পর্ক সর্বোচ্চ পর্যায়ে। কাশ্মীর কিংবা সীমান্তের যে কোনো ইস্যুতে যে কোনো সময় যুদ্ধ বেধে যেতে পারে, এমন অবস্থা। যে কারণে ক্রিকেট সম্পর্কও দুই দেশের মধ্যে একেবারেই শেষ হয়ে গেছে।

একটা সময় ছিল, যখন ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে যে কোনো রাজনৈতিক শীতল সম্পর্ককে উষ্ণ করতে পারতো ক্রিকেট। যে কারণে, দু’দেশের পররাষ্ট্রনীতিতে ‘ক্রিকেট ডিপ্লোম্যাসি’ শব্দযুগলও যোগ হয়ে গিয়েছিল।

কিন্তু সেই ক্রিকেট এখন ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে নির্বাসিত। কিন্তু ক্রিকেট খেলা না হলেও দুই দেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে একে অপরের প্রতি কিছুটা হলেও টান রয়েছে। যেটা দেখা যায় বেশি পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের মধ্যেই।

রোববার রাতে ব্যাঙ্গালুরুতে ভারত ৭ উইকেটে অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর পর শোয়েব আখতার যেভাবে উল্লাস প্রকাশ করেছেন, সেটাই প্রমাণ করে এই কথাটা। মোটকথা, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিতেছিল ভারত, আর খুশিতে উল্লাস প্রকশা করেছে পাকিস্তানি শোয়েব আখতার।

স্টিভেন স্মিথের সেঞ্চুরিতে ভর করে অস্ট্রেলিয়া ২৮৭ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছিল ভারতকে। জবাবে রোহিত শর্মার ১১৯ এবং বিরাট কোহলির ৮৯ রানের ওপর ভর করে ১৫ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটের ব্যবধানে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত। সে সঙ্গে সিরিজও জিতে নেয় ২-১ ব্যবধানে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুর্দান্ত এই জয়ের পর ভারতকে প্রশংসায় ভাসিয়ে দিলেন শোয়েব আখতার। দু’দেশের মধ্যে তিন ম্যাচের এই একদিনের সিরিজকে ‘মর্যাদার লড়াই’ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন শোয়েব। অতীতের ভারতীয় দলগুলোর মতো বিরাট-বাহিনী চাপের মুখে টেনশনে ভেঙে পড়ে না বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’ খ্যাত শোয়েব বলেন, ‘এই সিরিজ ছিল সম্মানের লড়াই। এটা নতুন ভারতীয় দল। যা মোটেই আমাদের সময়ের মতো নয়। প্রথম ম্যাচ হেরে যাওয়ার পরও এই দাপটের সঙ্গে সিরিজ জেতা খুব কঠিন। চিন্নাস্বামীতে ভারত, সত্যি বলতে, দুরমুশ করেছে অস্ট্রেলিয়াকে। যেন বাচ্চাদের সঙ্গে খেলছে, এমন ভাবে জিতেছে। একেবারে বিধ্বস্ত করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে।’

উল্লেখ্য, প্রথম ম্যাচে ভারতকে ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। পরের দুই ম্যাচ টানা জিতে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ নিজেদের করে নেয় বিরাট কোহলির দল।

পাকিস্তানের সাবেক গতি তারকা সিরিজে পিছিয়ে পড়েও ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য কৃতিত্ব দিয়েছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে কোহলিকে ‘অসাধারণ নেতা’ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন শোয়েব আখতার।

তিনি বলেন, ‘বিরাট কোহলি মানসিকভাবে প্রচণ্ড শক্তিশালি। কিভাবে ফিরে আসতে হয়, তা সে জানে। তার দলের ছেলেরাও বিষয়টা জানে। ধাক্কা খেয়ে হাল ছেড়ে দেওয়ার লোক সে নয়। তার উপর বিরাটের হাতে রয়েছে রোহিতত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, শ্রেয়াস আয়ার, লোকেশ রাহুলের মতো প্রতিভাবান ক্রিকেটাররা। তাই প্রতিপক্ষকে তিনশো রানের কমে আটকে রাখতে পারলে, আর সেটাও ব্যাঙ্গালুরুতে হলে, রান তাড়া সফল হওয়ারই ছিল।’

আইএইচএস/জেআইএম