পাকিস্তান নিয়ে উদ্বিগ্ন নন মাহমুদউল্লাহ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:২১ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০২০

ঠিক এক যুগ আগে ২০০৮ সালে যখন শেষবার দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলতে পাকিস্তান সফরে গিয়েছিল বাংলাদেশ, সেবার দলের সঙ্গী ছিলেন ‘পঞ্চ পান্ডবের’ সবাই।

তার কয়েক মাস পর আবার এশিয়া কাপ খেলতে যাওয়ার সময় উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার কারণে যেতে পারেননি সাকিব। বাকিরা মানে মাশরাফি, তামিম, মুশফিক আর মাহমুদউল্লাহ ঠিকই ছিলেন। আর এবার রাত পোহালে যে দলটি যাবে পাকিস্তান, তাতে পঞ্চ পান্ডবের তিনজনই নেই।

এর মধ্যে মাশরাফিতো আগে থেকেই টি-টোয়েন্টি দলের বাইরে। অবসর নিয়ে ফেলেছেন। সাসপেন্সনের খাঁড়ায় ঝুলে নেই সাকিব আল হাসানও। আর পাকিস্তানে যাওয়া মানের বাড়তি ঝুঁকি এবং পরিবারকে উদ্বিগ্ন আর শঙ্কায় ফেলে দেয়া- এই ভেবে যাচ্ছেন না মুশফিকুর রহীমও। যাবেন শুধু মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আর তামিম ইকবাল।

তার মানে ‘পঞ্চ পান্ডবের’ দু’জন মাত্র থাকবেন পাকিস্তানে। বাকিদের বড় অংশ পাকিস্তানে জাতীয় দলের সঙ্গী হয়ে প্রথম। এই দলটাকে কি অনভিজ্ঞ বলা যায়? যারা দলে সুযোগ পেয়েছেন, তারা কি সময়ের সম্ভাব্য সেরা পারফরমার? এ দলটিই কি এ সময়ের সম্ভাব্য সেরা দল?

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ অবশ্য বর্তমান দলটাকে নিয়ে আশাবাদী। তার ধারণা একঝাঁক ইনফর্ম পারফরমারই দলে জায়গা পেয়েছে। সবাই বিপিএলে ভাল খেলে দলে এসেছে এবং এই দল নিয়ে অধিনায়ক রিয়াদের অনেক আশা। তার ধারনা এবারের বিপিএলের সেরারাই দলে এসেছে। ব্যাটসম্যানদের মধ্যে যারা রান করেছে, তারাই আছে। আবার বোলারদেরও ভিতরেও যারা সর্বাধিক উইকেট শিকারি তারাও আছে। সব মিলে একঝাঁক ফর্মে থাকা পারফরমারে সাজানো দল।

তাই তার আশাবাদী উচ্চারণ, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে খুবই খুশি এই মুহূর্তে যারা স্কোয়াডে চান্স পেয়েছেন সবাই খুবই ভালো পারফর্মেন্স করেছে এই বিপিএলে। যারা ব্যাটসম্যান ছিলো সবাই রান পেয়েছে। বোলাররা যারা ছিলো সবাই উইকেট পেয়েছে। আমি সবকিছু নিয়ে খুবই কনফিডেন্ট। দেখার বিষয় আমরা ওখানে গিয়ে কতটুকু ভালোভাবে প্রয়োগ করতে পারি।’

কিন্তু তারপরও স্কোয়াড অনভিজ্ঞ। আর পাকিস্তানিরা র্যাংকিংয়ে অনেক ওপরে। সবার শীর্ষে। অধিনায়ক রিয়াদের চিন্তায় অবশ্য ওসব নেই। তার অনুভব, ‘প্রতিপক্ষের র্যাংকিং নিয়ে চিন্তা না করে নিজেদের করণীয় কাজগুলো ঠিকঠাকমত করার চেষ্টাই হবে মূল। আমরা যদি ওদের নিয়ে চিন্তা করি বা ওরা র্যাংকিংয়ে কি অবস্থায় আছে, এসব নিয়ে মাথা ঘামাই- তাহলে চলবে না। আমার মনে হয় না, উদ্বিগ্ন হাওয়ার কিছু আছে। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিজেদের ইউটিলাইজ করতে পারি এসব নেওয়ায় আমাদের মূল ভাবনা।’

এআরবি/আইএইচএস/এমকেএইচ