বাংলাদেশ-পাকিস্তান সিরিজ পরিচালনার দায়িত্বে যারা

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:০৮ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২০

বর্তমান সময়ে পাকিস্তানে যেকোনো সিরিজ আয়োজন মানে আইসিসিকেও নামতে হয় পরীক্ষায়। কেননা ম্যাচ অফিসিয়ালস তথা আম্পায়ার ও রেফারি নিয়োগের দায়িত্বটা যে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থারই। কিন্তু নিরাপত্তা ইস্যুকে মাথায় রেখে খুব কম এলিট প্যানেলভুক্ত রেফারি-আম্পায়ারই পাকিস্তানে যেতে রাজি হন।

তবে আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হতে পাকিস্তান-বাংলাদেশের মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজের অফিসিয়ালস নিয়োগ দিতে খুব একটা ঝামেলায় পড়তে হয়নি আইসিসিকে। কেননা কুড়ি ওভারের ফরম্যাটে ম্যাচের সব আম্পায়ার স্বাগতিক দেশের হলেও সমস্যা নেই। তাই শুধু ম্যাচ রেফারি নিয়োগ দিয়েই পার পেয়ে গেছে আইসিসি।

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য ম্যাচ রেফারি হিসেবে শ্রীলঙ্কান রঞ্জন মাদুগালের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আগামী ২৪, ২৫ ও ২৭ তারিখ লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে হতে যাওয়া তিনটি ম্যাচেই রেফারির দায়িত্বে থাকবেন আইসিসির ম্যাচ রেফারিদের এলিট প্যানেলভুক্ত সিনিয়র সদস্য ৬০ বছর বয়সী রঞ্জন মাদুগালে।

সবশেষ ২০০৬ সালের জানুয়ারিতে ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফরের তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে রেফারির দায়িত্ব পালন করেছিলেন মাদুগালে। এবারের সিরিজে প্রায় ১৪ বছর পর পাকিস্তানে দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছেন তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে তার আগে ডেভিড বুন, জেফ ক্রো, অ্যান্ডি পাইক্রফট এবং রিচি রিচার্ডসন পাকিস্তানে ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব পালন করেছেন।

প্রায় ২৭ বছর আগে এই পাকিস্তানেই ম্যাচ রেফারি হিসেবে অভিষেক ঘটেছিল রঞ্জন মাদুগালের। পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার টেস্ট ম্যাচ দিয়ে এ পেশায় যাত্রা শুরু হয় তার। একই সফরের ওয়ানডে সিরিজে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে ম্যাচও পরিচালনা করেন তিনি। সবমিলিয়ে ২০০৬ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানে মোট ১৫ টেস্ট ও ২০ ওয়ানডেতে ম্যাচ রেফারি ছিলেন মাদুগালে।

এছাড়া মাঠের আম্পায়ারিংয়ের দায়িত্বে দেখা যাবে আহসান রাজা, শোজাব রাজা, আহমেদ শাহাব ও তারিক রশিদকে। এদের মধ্যে আহসান রাজা ও শোজাব রাজা তিন ম্যাচেই থাকবেন অন ফিল্ড আম্পায়ার। আহমেদ শাহাব পালন করবেন থার্ড আম্পায়ারের দায়িত্ব আর তারিক রশিদ থাকবেন চতুর্থ আম্পায়ার হিসেবে।

এসএএস/জেআইএম