এবার শেবাগের ‘টাক ধরে টান’ মারলেন শোয়েব

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩২ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২০

শোয়েব আখতারের মুখে কিছু আটকায় না। যেমনটা আটকায় না বীরেন্দর শেবাগের মুখে। পাকিস্তান ও ভারতের এই দুই ক্রিকেট কিংবদন্তির মধ্যে যদি লড়াই বাঁধে, তবে সেটা যে সহজেই থেমে যাওয়ার মতো হবে না, আন্দাজ করাই যায়।

মাঠের লড়াই তো হয়েছে অনেক। দুজনই গেছেন অবসরে। তবে কথার লড়াইয়ে এখনও আগের মতোই আগ্রাসী এই দুই ক্রিকেটার। সাম্প্রতিক সময়ে আবারও নতুন করে জেগে উঠেছে শোয়েব-শেবাগের লড়াই।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজ জিতেছে ভারত। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি দল হলেও ভারতের প্রশংসায় রীতিমত পঞ্চমুখ হয়ে উঠেন শোয়েব। ভারতীয় দলকে নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করায় নিজের দেশ পাকিস্তানে বেশ সমালোচিত হন শোয়েব।

ওই ঘটনারই পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৬ সালের একটি ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে। যেখানে পাকিস্তানি পেস কিংবদন্তিকে রীতিমত ধুয়ে দিয়েছিলেন ভারতের সাবেক ওপেনার বীরেন্দর শেবাগ। শেবাগ সরাসরিই দাবি করেন, কেবল ভারতে ব্যবসা করতে হবে বলেই এই দেশের সুনাম বলে বেড়ান শোয়েব। অথচ খেলোয়াড়ি জীবনে তিনি তা কখনই করেননি।

শেবাগের এমন ভিডিও নতুন করে সামনে আসায় শোয়েব জবাব দিলেন সুযোগ বুঝে। যদিও তিনি শেষের অংশে এসে দাবি করেছেন, ‘বন্ধু’ শেবাগের সঙ্গে মজা করার উদ্দেশ্যেই এমনটা বলেছেন, তবে যা বলার বলে দিয়েছেন ঠিকই।

পাকিস্তানের সাবেক পেসার বলেন, ‘একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেটি আমার বন্ধু শেবাগের পুরোনো ভিডিও। শেবাগ একটু হালকা মেজাজের মানুষ। তবে সে বলেছে শোয়েব আখতার টাকার জন্যই ভারতের প্রশংসা করে।’

শেবাগকে মজার ছলে শোয়েব আক্রমণ করেন এভাবে, ‘আমার যত টাকা আছে, তোমার মাথায় তত চুলও নেই। যদি মেনে নিতে পার আমার অনুসারীসংখ্যা প্রচুর, তাহলে বোঝার চেষ্টা করো। শোয়েব আখতার হয়ে উঠতে আমার ১৫ বছর লেগেছে। হ্যাঁ, ভারতে আমার অনুসারীসংখ্যা প্রচুর। তবে আমি কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ভারত বাজে খেলার পর তাদের সমালোচনা করেছি। কথাটা মজা করে বললাম। কৌতুক হিসেবে নিও, বীরু। এসো বিষয়টিকে মজার মধ্যেই রাখি।’

ভারতের সুনাম করা প্রসঙ্গে শোয়েব বলেন, ‘আমাকে পাকিস্তানের একজন ইউটিউবারের কথা বলো, যে কিনা ভারতীয় দল ভালো করলে তাদের প্রশংসা করে না। ভারত ভালো খেললে রমিজ রাজা, শহীদ আফ্রিদি সবাই-ই তো প্রশংসা করেন। আমাকে একটা কথা বলো, ভারত কি বিশ্বের এক নম্বর দল নয়? কোহলি কি বিশ্বের এক নম্বর ব্যাটসম্যান নয়?’

বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে দ্রুতগতির ডেলিভারির মালিক যোগ করেন, ‘আমি বুঝি না যখন ক্রিকেট নিয়ে মতামত দেই, তখন সমস্যাটা কোথায়। আমি পাকিস্তানের হয়ে ১৫ বছর খেলেছি, আমি তো ইউটিউবে এসে বিখ্যাত হইনি। আমি বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির বোলার ছিলাম।’

এমএমআর/এমকেএইচ