চ্যাম্পিয়ন কাপ নামে নতুন টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে আইসিসি

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:১৭ পিএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

চ্যাম্পিয়ন্স কাপ নামে নতুন একটি টুর্নামেন্টের আয়োজন করতে যাচ্ছে ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি- দু’টি ফরম্যাট নিয়েই হবে এই চ্যাম্পিয়ন্স কাপ।

২০২৩ থেকে ২০৩১ ক্যালেন্ডার ইয়ারের জন্য যে ব্রডকাস্ট চুক্তি করতে যাচ্ছে আইসিসি সেখানেই নতুন এই টুর্নামেন্টের কথা বলা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ আয়োজন করতে চায় আইসিসি।

শুধু পুরুষদের নয়, নারীদের জন্যও টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে ফরম্যাটে চ্যাম্পিয়ন্স কাপ আয়োজন করার পরিকল্পনা করছে ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক সংস্থাটি। তবে এটা এখনও পরিকল্পনা পর্যায়ে। ব্রডকাস্টারদের কাছে নতুন কি প্রস্তাব নিয়ে হাজির হওয়া যায়, সে পরিকল্পনা থেকেই প্রস্তাবিত নতুন টুর্নামেন্ট সংজোযন করা হয়েছে।

কিভাবে হবে এই টুর্নামেন্ট? আইসিসি জানাচ্ছে, র‍্যাংকিংয়ে শীর্ষে থাকা ১০টি দলকে নিয়ে হবে এই টুর্নামেন্ট। আইসিসি’র প্রস্তাব অনুযায়ী, ২০২৪ ও ২০২৮ সালে টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ অনুষ্ঠিত হতে পারে। অন্যদিকে, ওয়ানডে’র চ্যাম্পিয়ন্স কাপ হতে পারে ২০২৫ ও ২০২৯ সালে।

jagonews24

এছাড়াও রয়েছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ (২০২৬ ও ২০৩০) এবং ওয়ানডে বিশ্বকাপ (২০২৭ ও ২০৩১)। আগের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মতোই হবে ওয়ানডে’র চ্যাম্পিয়ন্স কাপ। টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ আবার হবে ওই ফরম্যাটে বিশ্বকাপের আদলে।

গত বছর অক্টোবরেই আইসিসির বোর্ড অব ডিরেক্টরসের বৈঠকে এই প্রস্তাব তুলে ধরা হয়। তখন থেকেই আলোচনা চলে আসছিল এ বিষয়ে।

আগামী ১৫ মার্চের মধ্যে দরপত্র আহ্বান করেছে আইসিসি। তবে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই), ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) আইসিসি’র এই পরিকল্পনায় অখুশি হতে পারে।

তিনটি দেশের ক্রিকেট বোর্ড দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলার দাবি করে আসছিল। আইসিসির প্রস্তাবিত নতুন সূচি কার্যকর হলে এই তিনটি দেশের দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলার জন্য সময় বের করা কঠিন হবে। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের একটা দল আবার প্রশ্ন করছেন, এ ধরনের টুর্নামেন্ট প্রতি বছর আয়োজন করলে বিশ্বকাপের আর তাৎপর্য কি থাকবে?

আইএইচএস/এমকেএইচ