আফ্রিদি-গম্ভীরের ঝগড়া মেটানোর বুদ্ধি দিলেন ওয়াকার

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৩২ পিএম, ০১ জুন ২০২০

শহীদ আফ্রিদি আর গৌতম গম্ভীরের সম্পর্কটা যেন ‘সাপে-নেউলে’। একজন আরেকজনের কথা শুনতেই পারেন না। খেলোয়াড়ি জীবনে বৈরিতা ছিল, সেটি এখনও চলছে।

দুই একটা উদাহরণ দেখা যাক। আফ্রিদি তার আত্মজীবনীতে ভারতের সাবেক ওপেনার গম্ভীরকে নিয়ে লিখেছেন, ‘ডন ব্র্যাডমান আর জেমস বন্ড মিলিয়ে যা হবে, তেমন ভাব দেখায় গম্ভীর। তার শুধু এমন ভাবই আছে, নেই কোনো বড় রেকর্ড।’

জবাবে গম্ভীর পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডারকে আক্রমণ করে লিখেন, ‘তার চিকিৎসা দরকার। আমি নিজ উদ্যোগে তাকে মানসিক ডাক্তারের কাছে নিতে রাজি আছি।’

এখন তো আর সামনাসামনি দেখা হয় না, তাই ঝগড়ার জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমকেই বেছে নিয়েছেন তারা। কখনও আফ্রিদি দুষছেন গম্ভীরকে, কখনও গম্ভীর আফ্রিদিকে। চলছে তো চলছেই।

ব্যাপারটা এখন দৃষ্টিকটু পর্যায়ে চলে গেছে বলেই মনে করেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমান বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনুস। দুজনকেই এমন আচরণের জন্য দুষলেন তিনি।

ওয়াকার বলেন, ‘গৌতম গম্ভীর আর শহীদ আফ্রিদির মধ্যে লড়াইটা অনেক দিন ধরেই চলছে। আমি মনে করি তাদের দুজনেরই স্মার্ট, বিচারবুদ্ধিসম্পন্ন হওয়া উচিত। এবার থামা উচিত তাদের।’

পাকিস্তানের সাবেক পেসার যোগ করেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যদি আপনি এসব চালিয়ে যান, মানুষ লুফে নেবে। মানুষ এটা উপভোগ করছে। আমার মনে হয়, তাদের দুজনেরই আরও বিচক্ষণ ও স্মার্ট হওয়া উচিত।’

সমস্যার সমাধানকল্পে একটা বুদ্ধিও বের করেছেন ওয়াকার। তিনি বলেন, ‘এটা অনেক দূর চলে গেছে। তাদের প্রতি আমার পরামর্শ হলো, যদি সত্যিই এটা থামাতে না পারো, তবে বিশ্বের কোনো একটা জায়গায় দেখা করো এবং সামনাসামনি কথা বলো।’

ওয়াকার মনে করেন, পাকিস্তান আর ভারতের মধ্যে যতই রাজনৈতিক বৈরিতা থাক, মাঠের খেলাটা চালিয়ে যাওয়া উচিত। তার ভাষায়, ‘যদি আপনি দুই দেশের মানুষকে জিজ্ঞেস করেন পাকিস্তান আর ভারতের খেলা উচিত কি না। সবাই, ৯৫ ভাগ মানুষই সম্মতি দেবে। দুই দেশের মধ্যে ক্রিকেট অবশ্যই হওয়া উচিত।’

এমএমআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]