বিশ্বকাপ ফাইনালে ফিক্সিং : ওপেনার থারাঙ্গাকে জিজ্ঞাসাবাদ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৩৭ পিএম, ০২ জুলাই ২০২০

‘ভারতের কাছে ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল বিক্রি করেছে শ্রীলঙ্কা’- এমন মন্তব্য করে ক্রিকেট বিশ্বে তোলপাড় ফের দিয়েছেন তখনকার লঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রী আলুথগামাগে। এ নিয়ে তুমুল তোলপাড়ের মুখে অবশেষে তদন্ত শুরু করেছে শ্রীলঙ্কান গোয়েন্দারা। সত্যি সত্যি এমন ঘটনা ঘটেছিল কি না, সেটাই এখন খুঁজে বের করবে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড এবং সরকার।

এরই মধ্যে তখনকার নির্বাচক বোর্ডের সদস্য অরবিন্দ ডি সিলভাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। খবরে প্রকাশ, সেই জিজ্ঞাসাবাদে নাকি একজন ওপেনারের নাম উঠে এসেছে। এরপর জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে সেই ফাইনালে শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারাকে। অন্য খেলোয়াড়দের মধ্যে সবার আগে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলো সেই ফাইনালে লঙ্কান ওপেনার উপুল থারাঙ্গাকে।

৩৫ বছর বয়সী এই ওপেনারকে টানা দুই ঘণ্টা ধরে নানা প্রশ্নবানে জর্জরিত করেছে শ্রীলঙ্কার স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন ইউনিট (এসআইইউ)। জিঞ্জাসাবাদ থেকে বেরিয়ে আসার পর সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন থারাঙ্গা। তিনি তখন কি জিজ্ঞাসাবাদ করা হলো, সে বিষয়ে কিছুই জানাতে অস্বীকৃতি জানান। শুধু এটুকু বলেন, ‘চলমান তদন্ত সম্পর্কিত বেশ কিছু প্রশ্ন করেছেন তারা আমাকে। আমি আমার বক্তব্য তাদের সামনে উপস্থাপন করেছি।’

২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে মুম্বাইর ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ২০ বল খেলে মাত্র ২ রান করেছিলেন লঙ্কান ওপেনার উপুল থারাঙ্গা। অথচ পুরো টুর্নামেন্টে ২ সেঞ্চুরি এবং এক হাফ সেঞ্চুরিতে ৩৯৫ রান করেছিলেন তিনি। শ্রীলঙ্কা প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭৪ রান করেছিল। এরপর ১৮ রানে শচিন টেন্ডুলকারের উইকেট তুলে নিয়ে চালকের আসনেই ছিল লঙ্কানরা। কিন্তু নাটকীয়ভাবে ম্যাচ ঘুরে যায় লঙ্কানদের বাজে ফিল্ডিং এবং বোলিংয়ের কারণে। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে হেরে যায় তারা।

এসআইইউ প্রধান জগত ফনসেকা বলেন, ‘থারাঙ্গার বক্তব্য বিশ্লেষণ করার পরই পরবর্তীতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কাকে ডাকা হবে, সেটা ঠিক করা হবে।’ একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, এরই মধ্যে তাদের কাছে গোয়েন্দা রিপোর্ট এসে পৌঁছেছে। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক কয়েকটি সূত্র থেকেও তারা তথ্য পেতে শুরু করেছেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কার ফিক্সিং কানেকশন নিয়ে গত কয়েক বছরই তোলপাড় চলছে। ২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগেই একবার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ উঠেছিল। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে আইসিসি সাবেক তিন ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে তদন্তে নেমেছে। তবে, তাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি কোনো পক্ষ থেকে।

আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]