ব্রডকে বাদ দেয়া স্টোকসের সৌভাগ্য!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৩৪ এএম, ১৩ জুলাই ২০২০

নিজেদের ঘরের মাঠে সাউদাম্পটন টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হেরে গেছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। স্বাভাবিকভাবেই হারের পর উঠছে একের পর এক প্রশ্ন। সিংহভাগের ধারণা, ম্যাচের একাদশে অভিজ্ঞ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডকে না রাখার সিদ্ধান্তই কাল হয়েছে বেন স্টোকসের দলের জন্য।

নতুন বলে জিমি অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রডের জুটি গত কয়েক বছর ধরেই ইংল্যান্ডের সাফল্যের অন্যতম কারিগর। কিন্তু সাউদাম্পটনে তাকে বাইরে রেখে অ্যান্ডারসনের সঙ্গে খেলানো হয়েছে জোফরা আর্চার ও মার্ক উডকে। ম্যাচের দুই ইনিংস মিলে আর্চার ও উডের শিকার মাত্র ৫টি উইকেট।

এ দুই বোলারের এমন পারফরম্যান্সের পর ব্রডকে বাইরে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে আরও বেশি। তবে এই ম্যাচের অধিনায়ক বেন স্টোকস এতে নেতিবাচক কিছু দেখছেন না। এমনকি ব্রডকে দলে না নেয়ায় তার কোন আফসোস নেই। উল্টো ব্রডের মতো বোলারকে বাদ দিতে পারাকে ভাগ্যের বিষয় হিসেবেই উল্লেখ করেছেন স্টোকস।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ব্রডের বিষয় প্রশ্ন রাখা হলে স্টোকস বলেন, ‘স্টুয়ার্ট ব্রডকে বাইরে রাখায় আমার কোন আফসোস নেই। আমরা ভাগ্যবান যে তার মতো একজনকে বাইরে রাখতে পেরেছি। সে যদি দ্বিতীয় ম্যাচে দলে ফেরে, আমি তার কাছ থেকে অবশ্যই উইকেটের আশা করব।’

একাদশ থেকে বাদ পড়ার পর সংবাদ মাধ্যমে নিজের হতাশা ও ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন ব্রড। সেটিকেও ইতিবাচকভাবেই দেখছেন স্টোকস। বরং ব্রড যদি নিজের ক্ষোভ না প্রকাশ করতো, তাহলেই হতাশ হতেন স্টোকস।

তিনি বলেন, ‘সে (ব্রড) যদি সাক্ষাৎকারে নিজের রাগটা না দেখাতো, তাহলেই আমি বরং হতাশ হতাম। সাক্ষাৎকারে ব্রড জাতীয় দলের প্রতি নিজের প্যাশন এবং ইচ্ছাটা ভালোভাবে বুঝিয়ে দিয়েছে। তার এখনও অনেক সময় আছে। তবে আমি সত্যিই কোন আফসোস করছি না। এমনটা করলে যাদেরকে দলে নিয়েছি, তাদের প্রতি একটা ভুল বার্তা যেতো।’

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]