‘ক্যারিয়ার বাঁচাতে বাটলারের সামনে মাত্র দুই ম্যাচ’

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:২৪ এএম, ১৪ জুলাই ২০২০

৪২ টেস্টের ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন একটি, ফিফটি পেরিয়েছেন ১৫ বার। তবে সবশেষ ফিফটি করেছেন প্রায় মাস দশেক আগে। তারপর খেলে ফেলেছেন ১২ ইনিংস। কিন্তু আসেনি বলার মতো কোন ইনিংস। ফলে তার ক্যারিয়ারের শেষ বিন্দু দেখে ফেলেছেন ইংল্যান্ডের সাবেক পেসার ড্যারেন গফ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে বাটলারের ইনিংস দুইটি হলো ৩৫ ও ৯ রানের। এছাড়া উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতেও ছেড়েছেন জার্মেইন ব্ল্যাকউডের মূল্যবান ক্যাচ। ফলে গফের মতে সিরিজের বাকি দুই ম্যাচে বলার মতো কিছু করতে না পারলে, এ সিরিজেই শেষ হয়ে যাবে বাটলারের টেস্ট ক্যারিয়ার।

স্কাই স্পোর্টসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে গফ বলেছেন, ‘আমার মতে, নিজের ক্যারিয়ার বাঁচানোর জন্য আর দুইটি টেস্ট পাচ্ছে বাটলার। সে দুর্দান্ত প্রতিভা। তার ব্যাটে প্রায় সব ধরনের শটস আছে। কিন্তু টেস্ট ক্রিকেটে আপনি বারবার আউট হয়ে ফিরে আসতে পারেন না। বাটলার এটিই করছে এখন।’

শুধু বাটলার একাই নন, সিরিজের প্রথম ম্যাচ হেরে যাওয়ায় গফের আতশি কাঁচের নিচে পড়েছে পুরো ইংল্যান্ড ম্যানেজম্যান্টই। তার মতে জোফরা আর্চার ও মার্ক উডের মধ্যে যেকোন একজনকে খেলানো উচিৎ এবং স্টুয়ার্ট ব্রডকে সবসময় রাখা উচিৎ। এমনকি জিমি অ্যান্ডারসনকেও বিশ্রাম দেয়ার পক্ষে গফ।

তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি ব্রডকে দলে ফিরিয়ে উড এবং অ্যান্ডারসনকে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বিশ্রাম দেয়া উচিৎ। তাদের বদলে ব্রড এবং ওকসকে নেয়া যায়। আমার পরিকল্পনা এটাই। ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খেলানো। তৃতীয় ম্যাচের জন্য আবার অ্যান্ডারসন এবং উডকে ফিরিয়ে আনা যাবে। শুরু থেকেই বলছি আর্চার ও উডের মধ্যে একজনকে খেলানো উচিৎ।’

‘দক্ষিণ আফ্রিকায় উডের গতিময় বোলিং দেখে আমরা আবেগে ভেসে গেছি। আর্চারও ঠিক এমনটাই করে। তবে ঠিক প্রতি ম্যাচে এমন করাটা বেশ কঠিন। অথচ ব্রড, ওকস এবং অ্যান্ডারসন আমাদের ভরসা করার মতো ব্যাটসম্যান। অন্যদিকে নিজেদের দিনে প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিতে পারবে আর্চার ও উড।’

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]