অথচ অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেলেছিলেন ব্রড

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৩৯ পিএম, ০২ আগস্ট ২০২০

টেস্ট ইতিহাসের প্রথম দল হিসেবে পরপর দুই সিরিজের ০-১ ব্যবধানে পিছিয়ে থেকেও ২-১ ব্যবধানে জেতার রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তারা দেখিয়েছে এই বিরল কৃতিত্ব। সাউদাম্পটনে প্রথম ম্যাচ হারের পর জিতেছে ম্যানচেস্টারের পরের দুই টেস্ট।

ইংলিশদের এই অসাধারণ প্রত্যাবর্তনের অন্যতম নায়ক ছিলেন ডানহাতি পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড। দ্বিতীয় টেস্টে নিয়েছেন ৬ উইকেট। পরের টেস্টে ছাড়িয়ে গেছেন এটিকেও। শেষ ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৬ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেট নেয়ার মাধ্যমে ইতিহাসের সপ্তম বোলার হিসেবে প্রবেশ করেছেন ৫০০ টেস্ট উইকেটের মাইলফলকে।

অথচ টিম কম্বিনেশনের দোহাই দিয়ে তাকে সাউদাম্পটন টেস্টে নামায়নি ইংল্যান্ড। যার খেসারত দিতে হয়েছে মাঠে, ম্যাচটি হেরে গিয়েছিল তারা। আর সেই ম্যাচের একাদশ থেকে বাদ পড়ে খেলা থেকে অবসরের সিদ্ধান্তই নিয়ে ফেলেছিলেন ব্রড। ভাগ্যিস তিনি শেষপর্যন্ত অবসর নেননি।

রোববার দ্য মেইলকে ব্রড বলেছেন, ‘(দল থেকে বাদ পড়ার পর) অবসরের চিন্তা মাথায় এসেছিল কি না? হ্যাঁ! একশ ভাগ। কারণ আমি তখন একদমই ভেঙে পড়েছিলাম। আমার মনে পড়ে না যে কখনও এতটা মর্মাহত হয়েছি কি না। আগে যখন বাদ পড়তাম, নিজেই নিজেকে বলতাম, ঠিক আছে, ভালো সিদ্ধান্ত। এর বিপরীতে তর্ক করার উপায় নেই।’

‘কিন্তু এবার যখন বেন স্টোকস (প্রথম টেস্টের অধিনায়ক) আমাকে বলল যে আমি খেলছি না, আমার শরীর কাঁপতে শুরু করেছিল। আমি কথাই বলতে পারছিলাম না।’

ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে সিরিজ শেষে ব্রডের মোট উইকেটসংখ্যা ৫০১টি। বর্তমানে খেলে যাওয়া বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উইকেট স্টোকসের নতুন বলের সঙ্গী জেমস অ্যান্ডারসন (৫৮৯)। যিনি নিশ্চিতভাবেই ৬০০ উইকেটের মাইলফলকে প্রবেশ করতে চলেছেন।

একই কীর্তি গড়ার ব্যাপারে আশাবাদী ব্রড নিজেও। তার ভাষ্য, ‘আমি ৬০০ উইকেট নিতে পারব কি না? অবশ্য আমি পারব। জিমি যখন ৫০০ উইকেট পায়, তার বয়স ছিল ৩৫ বছর ১ মাস। আমার বয়স এখন ৩৪ বছর ১ মাস। জিমি প্রায় ৬০০ উইকেট পেয়ে গেছে। তাই পরিসংখ্যানগতভাবে আমিও পাবো নিশ্চিত।’

এসএএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]