শ্রীলঙ্কা সফর প্রায় চূড়ান্ত, প্রস্তুতি কবে থেকে?

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:৩৪ পিএম, ১০ আগস্ট ২০২০

বাংলাদেশ দল সেপ্টেম্বরেরর ২০ থেকে ২২ তারিখ শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে। আর ২৪ অক্টোবর সম্ভাব্য প্রথম টেস্ট শুরুর দিন হিসেবে ধরেই সফরসূচি সাজানো হচ্ছে। আজ (সোমবার) সকালে বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান জাগো নিউজের সাথে আলাপে এমনটাই জানিয়েছেন।

বিকেলে হঠাৎ বিসিবি সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজনের ভিডিও বার্তা। সেটা খোলার আগে মনে হচ্ছিল শ্রীলঙ্কা সফরসূচি বুঝি চূড়ান্ত। বোর্ড সিইও হয়তো এটাই জানিয়ে দেবেন। আসলে তা নয়। তিনিও যা বলেছেন, তাতে বুঝিয়ে দিয়েছেন জাতীয় দলের শ্রীলঙ্কা সফর মোটামুটি নিশ্চিত। তবে সফরসূচি চূড়ান্ত হয়নি। একই কথা ক্রিকেট অপস প্রধান আকরাম খানও বলেছিলেন। বিসিবি প্রধান নির্বাহীর মুখেও একই কথা।

সোমবার বিকেলে বিসিবি থেকে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী কোন নতুন তথ্য দেননি। শ্রীলঙ্কা সফরে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের পাশাপাশি তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা আছে। সেটাও জাগো নিউজে আগে প্রকাশ করা হয়েছে। আকরাম খানের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ হয়েছে ঈদের ছুটির আগেই।

আজ সোমবার সে কথাই জানালেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন। তিনিও জানিয়েছেন, সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে শ্রীলঙ্কা যাওয়ার কথা হচ্ছে।

তবে সফরসূচি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। সফরসূচি চূড়ান্ত হলেই কেবল জাতীয় দলের দেশের মাটিতে কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরুর কথা ভাবা হবে।

বোর্ড সিইও আরও জানালেন, ‘দুই বোর্ডের মধ্যে যোগাযোগ হচ্ছে নিয়মিত। তিন ম্যাচে টেস্ট ও তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রস্তাব এসেছে। আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবো। কোন ফরম্যাটে খেলা হবে, সেটা চূড়ান্ত হবার পরপরই সিরিজের সফরসূচি ঠিক করা হবে। এবং সফরসূচি চূড়ান্ত হবার আগে জাতীয় দলের পুরোদস্তুর ট্রেনিং ক্যাম্প শুরুর সম্ভাবনা নেই একদমই।’

তার মানে এখন যেমন ব্যক্তিগত পর্যায়ের অনুশীলন চলছে, সেটাই হয়ত অব্যাহত থাকবে। এরপর কবে কোন ম্যাচ, সেটা ঠিক হলে তারপর প্রস্তুতি শুরুর পালা।

এদিকে ক্যাম্প শুরুর আগে ক্রিকেটারদের করোনা টেস্ট করানো হবে। এমনটা জানিয়ে বিসিবি সিইও বলেন, ‘জাতীয় দলের সম্ভাব্য ক্রিকেটারদেরকে আমরা করোনাকালিন সময়ে একটি অ্যাপসের মধ্যে নিয়ে এসেছি। কোভিড-১৯ নামে। আমাদের বিসিবির চিকিৎসকরা সার্বক্ষণিকভাবে তাদের মনিটর করছেন। যখনই তাদের ক্যাম্প করবো তখনই তাদের আইসোলেশনে রেখে পরীক্ষা নীরিক্ষা করানো হবে। তারপর তাদের আবাসিক কাম্পের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

এআরবি/আইএইচএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]