উর্দুতে ধারাভাষ্য দেবেন ওয়াসিম-রমিজ!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৪২ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

তাদের মাতৃভাষা উর্দু। মাতৃভাষায় ধারাভাষ্য দেবেন এটাই তো স্বাভাবিক। এখানে অবাক হওয়ার কিছুই নেই। এ নিয়ে নিউজ করাটাও তো প্রায় বোকামি।

কিন্তু ব্যাক্তি দু’জন যদি হন ওয়ানিম আকরাম এবং রমিজ রাজা, তখন তো বিস্ময় তৈরি হয়ই। নিউজও হয় এ কারণে। কারণ, ওয়াসিম আকরাম এবং রমিজ রাজার মাতৃভাষা উর্দু হলেও, তারা সাধারণ ধারাভাষ্য দেন ইংরেজি ভাষাতেই। তাদেরকে কখনো মাতৃ ভাষায় ধারাভাষ্য দিতে দেখা যায় না।

কিন্তু করোনার কারণে চারদিকে সব ধরনের ক্রিকেট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আপাতত বেকারই হয়ে পড়েছেন ক্রিকেট ছেড়ে ধারাভাষ্যকার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ে তোলা এই দুই পাকিস্তানি কিংবদন্তি। এ কারণে, তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তাদের দেশের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগে ধারাভাষ্য দেয়ার।

৩০ অক্টোবর থেকে শুরু হবে পাকিস্তানের ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি লিগ। মুলতান এবং রাওয়ালপিন্ডির মাঠে নামার মধ্য দিয়ে শুরু হবে করোনা পরবর্তী সময়ে পাকিস্তানের ঘরোয়া ক্রিকেট। সেখানেই পাকিস্তানি মানুষদের জন্য তাদের মাতৃভাষায় ধারাভাষ্য সম্প্রচারের লক্ষ্য হাতে নিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

সে লক্ষ্যে তারা যে ধারাভাষ্য প্যানেল তৈরি করেছে, তাতে নাম রয়েছে ১৯৯২ বিশ্বকাপ জয়ী দলের অন্যতম দুই সদস্য ওয়াসিম আকরাম এবং রমিজ রাজার।

তবে প্রসঙ্গক্রমে বলতে হয়, করোনার কারণে সমাপ্ত না হওয়া পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) উর্দুতে ধারাভাষ্য দেয়ার ব্যবস্থা করেছিল পিসিবি। কিন্তু পাকিস্তানের মানুষই নিজ দেশের ভাষায় দেয়া ধারাভাষ্য শুনতে রাজি ছিল না। বিশেষ করে উর্দুতে ধারাভষ্য দেয়ার ভঙ্গি এবং শব্দ নির্বাচনে অপটুতার পরিচয় দেয়ার কারণে ধারাভাষ্যকারদের ওপর যারপরনাই বিরক্ত হয়ে উঠেছিল শ্রোতারা।

আইএইচএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]