শ্রীলঙ্কায় টেস্ট দলে আছেন সাইফউদ্দিন!

আরিফুর রহমান বাবু
আরিফুর রহমান বাবু আরিফুর রহমান বাবু , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৫৩ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

সবার জানা, এখনো টেস্ট দল ঘোষণা হয়নি। তবে দল চূড়ান্ত হয়েছে সপ্তাহ দেড়েক আগেই। নির্বাচকরা অধিনায়ক মুমিনুল হক, হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর সাথে কথা বলে ২১ জনের টেস্ট স্কোয়াড সাজিয়ে রেখেছেন। তা ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির হাত হয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের অনুমোদনও পেয়ে গেছে।

তবে যেহেতু সফর এখনো নিশ্চিত হয়নি, তাই ২৭ জনের প্রাথমিক দল ‘স্কিল ট্রেনিংয়ে।’ কিন্তু ঠিক এ রকম সময় পেসবোলিং অলরাউন্ডার সাইফউদ্দীন হঠাৎ এক চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছেন।

তার একটি মন্তব্য হঠাৎই আলোড়ন তুলেছে। আজ সোমবার বিসিবির সরবরাহ করা ভিডিও বার্তায় কথা বলতে গিয়ে সাইফউদ্দীন বলে ফেলেছেন, ‘যেহেতু প্রথমবারের মতো টেস্ট স্কোয়াডে ডাক পেয়েছি, আমি খুবই আনন্দিত। চেষ্টা করব নিজের সেরাটা দেওয়ার।’

সবার জানা সব ঠিক-ঠাক থাকলেও সফর নিশ্চিত না হওয়ায় এখনো দল ঘোষণা হয়নি। তাহলে দল ঘোষণার আগেই সাইফউদ্দীন এমন মন্তব্য করেন কি করে?

খুব প্রাসঙ্গিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি সাইফউদ্দীন সত্যিই টেস্ট দলে জায়গা পেয়েছেন? কিংবা নির্বাচকরা, বিশেষ করে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু তাকে কোন আগাম পূর্বাভাষ দিয়েছেন? নাকি ২৭ জনের ‘জিও’ হওয়া প্রাথমিক দলকে মূল দল ভেবেই এমন মন্তব্য সাইফউদ্দীনের?

Saif

তাইবা কি করে হয়? আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের সাড়ে তিন বছর পার করে ফেলেছেন, তিনি কি প্রাথমিক দল আর মূল দলের পার্থক্য বোঝেন না? তাহলে এমন মন্তব্যের পেছনের কারণ কী?

জাগো নিউজের পক্ষ থেকে করা অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে নতুন তথ্য। সাইফউদ্দীন এমনি এমনি বলেননি। একদম ভেতরের খবর, তাকে মানসিক ও শারীরিকভাবে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। এ পেস বোলিং অলরাউন্ডার একদম আসল জায়গা থেকেই সবুজ সঙ্কেত পেয়েছেন। নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে, সংখ্যা ২০ কিংবা ২১ যাই হোক না কেন, শ্রীলঙ্কা সফরে টেস্ট দলে পেস বোলিং অলরাউন্ডারের কোটায় সাইফউদ্দীনের থাকা প্রায় নিশ্চিত।

আজ বুধবার রাতে খোদ প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর কন্ঠে মিলেছে এমন আভাস, ‘বিশ্বের সব টেস্ট দলেই অন্তত একজন পেস বোলিং অলরাউন্ডার থাকে। যে পেস বোলিং আর ব্যাটিংয়ে সমান দক্ষ। তাতে করে দুটি অপশন বাড়ে। একজন পেস বোলারও বাড়ে পাশাপাশি নীচের দিকে, মানে লেট মিডল অর্ডারে বাড়তি ব্যাটসম্যানও মেলে। আমরা টেস্ট দলে এমন একজনকে খুঁজে ফিরছিলাম। মাঝে ইনজুরির কারণে সে দলেই ছিল না। এবার সুস্থ্য হয়ে প্র্যাকটিসে আছে। আমরা তাই সাইফউদ্দীনকে সেই পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে বিবেচনায় আনার কথা ভাবছি।’

নান্নু নিজ মুখে না বললেও জানা গেছে প্র্যাকটিস শুরুর আগে প্রধান নির্বাচকের এ ভাবনার কথা মুঠোফোনে সাইফউদ্দীনকে জানানোও হয়েছে যে, শ্রীলঙ্কায় আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে একজন পেস বোলিং অলরাউন্ডারের অন্তর্ভুক্তির চিন্তা চলছে।

যেহেতু এ মুহূর্তে পেসারদের মধ্যে তার চেয়ে ভালো ব্যাটসম্যান আর নেই, তাই সাইফউদ্দীন ওই ক্যাটাগরির অটেমেটিক চয়েজ হয়ে গেছেন। যদি সব অনিশ্চয়তার ঘোর কেটে জাতীয় দল শ্রীলঙ্কায় টেস্ট খেলতে যায়, সেই দলে সাইফউদ্দীনকে দেখা গেলে মোটেই অবাক হবেন না।

তার মানে এতদিন লাল সবুজ জার্সি গায়ে চাপিয়ে সাদা বল হাতে নেয়া সাইফউদ্দীনকে এবার সাদা পোশাকেও দেখা যাবে? ফেনীর এ পেসবোলিং অলরাউন্ডারের হাতেও উঠবে লাল বল?

এআরবি/আইএইচএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]