বৃষ্টির বাগড়ায় বিঘ্নিত হলো প্র্যাকটিস

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:১৫ পিএম, ০১ অক্টোবর ২০২০

সকালের বৃষ্টি দেখেই জেগেছিল সংশয়, আজ দুপুর থেকে যে জাতীয় দলের অনুশীলন শুরুর কথা ছিল, তা কি শুরু হবে? এই বৃষ্টির পর শেরে বাংলার ভেজা আউটফিল্ডে কি প্র্যাকটিস সম্ভব? এমন প্রশ্ন নিয়েই এক অক্টোবর বৃহস্পতিবার হোম অব ক্রিকেটে উপস্থিত হয়েছিলেন সংবাদকর্মীরা।

তাদের সংশয় কাটলো বেলা দেড়টার কিছুক্ষণ পর। দুপুর পৌনে ২টার দিকে হঠাৎ পুলিশের গাড়ির হর্ণ। শ্যামলী পরিবহনের বিশাল আকৃতির টিম বাসে এসে হোম অব ক্রিকেটে হাজির টাইগাররা।

ড্রেসিং রুমে কিছুক্ষণ কাটিয়ে দুপুর ২টার অল্প কিছুক্ষণ পর সোজা মাঠে চলে আসলেন ক্রিকেটাররা। সঙ্গে ৫ বিদেশি কোচিং স্টাফও।

প্রথমে ফুটবল খেলে শরীর গরম। তারপর হালকা স্ট্রেচিং, ফিজিক্যাল ড্রিল। হালখা ফিল্ডিং ও ক্যাচিং প্র্যাকটিস। তারপর বেলা পৌনে তিনটার দিকে শুরু সেন্টার উইকেটে নেট।

একদম লাল বলে সব প্রতিষ্ঠিত পেসার রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান ও হাসান মাহমুদরা নতুন বল নিয়ে তৈরি। সাথে সৌম্য সরকারও হাত ঘোরালেন। তাদের বিপক্ষে শেরে বাংলার সেন্টার উইকেটে ব্যাট হাতে নামলেন ইমরুল কায়েস,নাজমুল হোসেন শান্ত ও ইয়াসির আরাফাত রাব্বি।

তিনটার অল্প সময় পর শুরু হলো নেট; কিন্তু খুব বেশি সময় ধরে নয়। বেলা ৩টা ৫০ মিনিটের দিকে বেশ জোরে শুরু হলো বৃষ্টি। ইলশে গুঁড়ি বা টিপ টিপ নয়, মাঝারি বর্ষণ যাকে বলে। তাতেই বন্ধ হয়ে গেল প্র্যাকটিস। সবাই দৌড়ে চলে গেলেন ড্রেসিং রুমে। এভাবেই বৃষ্টিতে নষ্ট হলো আজ এক অক্টোবরের ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলন। সাকুল্যে তিরিশ মিনিটও হয়নি সেন্টার উইকেটের ব্যাটিং ও বোলিং।

শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল হলেও বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়ে রেখেছেন, অনুশীলন চলবে। ক্রিকেটারা ১৫ দিন আরও প্র্যাকটিস করবেন। তিনটি গা গরমের ম্যাচও খেলবে।

যেমন কথা, তেমন কাজ। আজ বৃজহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে প্র্যাকটিস। কাল শুক্রবার শুরু দুই দিনের প্র্যাকটিস ম্যাচ।

এআরবি/আইএইচএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]