আইপিএলে ‘ব্যাক টু ব্যাক’ সেঞ্চুরিতে ধাওয়ানের ইতিহাস

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:২১ এএম, ২১ অক্টোবর ২০২০

দীর্ঘ ১৩ বছরের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম ২৬৭ ম্যাচ কিংবা আইপিএল ক্যারিয়ারের ১৬৭ ম্যাচ শেষেও কোনো সেঞ্চুরি করতে পারেননি ভারতের বাঁহাতি ওপেনার শিখর ধাওয়ান। আইপিএলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় সেরা পাঁচে থাকলেও, তার নামের পাশে সেঞ্চুরি না থাকাটা কেমন বেমানানই লাগছিল।

সেই ধাওয়ান এবার শুধু সেঞ্চুরিই করেননি, গড়েছেন ইতিহাস। তাও এক সেঞ্চুরি নয়, পরপর দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে আইপিএল ইতিহাসের অনন্য এক রেকর্ড গড়েছেন ধাওয়ান। তার আগে আইপিএলে আর কোনো ক্রিকেটার পরপর দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি করতে পারেননি। তবে সবমিলিয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি হাঁকানো নবম ক্রিকেটার ধাওয়ান।

গত শনিবার (১৭ অক্টোবর) চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে ৫৮ বলে ১০১ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছিলেন ধাওয়ান। যা ছিল আইপিএল ও টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে তার প্রথম সেঞ্চুরি। ধারাবাহিকতা ধরে রেখে মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে ধাওয়ানের ব্যাট থেকে এলো ৬১ বলে ১০৬ রানের অপরাজিত ইনিংস।

চলতি আইপিএলের নিজেদের প্রথম ম্যাচে শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন দিল্লি ক্যাপিট্যালসের এই ওপেনার। পরের পাঁচ ম্যাচেও পাননি ফিফটির দেখা। কিন্তু শেষ চার ম্যাচে ধাওয়ানের ইনিংসগুলো যথাক্রমে ৬৯*, ৫৭, ১০১* ও ১০৬; অর্থাৎ শেষ চার ম্যাচে ৩৩৩ গড়ে ৩৩৩ রান করেছেন গাব্বার সিং খ্যাত এই ব্যাটসম্যান।

আইপিএল ইতিহাসের প্রথম হলেও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ধাওয়ানের আগে আরও ৮ ক্রিকেটার পরপর দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। তারা হলেন যথাক্রমে ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া), উন্মুখত চাঁদ (ভারত), লুক রাইট (ইংল্যান্ড), মাইকেল ক্লিঙ্গার (ইংল্যান্ড), কেভিন পিটারসেন (ইংল্যান্ড), মার্কো মারাইস (দক্ষিণ আফ্রিকা), রেজা হেন্ডরিকস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও ইশান কিশান (ভারত)।

এদিকে আইপিএলের এক আসরে একাধিক সেঞ্চুরি করা দ্বিতীয় ভারতীয় এবং সবমিলিয়ে পঞ্চম ক্রিকেটার হয়েছেন ধাওয়ান। তার আগে এই কীর্তি গড়া চার ব্যাটসম্যান হলেন বিরাট কোহলি (২০১৬ সালে ৪ সেঞ্চুরি), ক্রিস গেইল (২০১১ সালে ২ সেঞ্চুরি), হাশিম আমলা (২০১৭ সালে ২ সেঞ্চুরি) এবং শেন ওয়াটসন (২০১৮ সালে ২ সেঞ্চুরি)।

ইতিহাস গড়ার দিকে একটি মাইলফলকেও পৌঁছে গেছেন ধাওয়ান। আইপিএলের পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি এখন ৫ হাজারি ক্লাবের সদস্য। আইপিএলে তার সংগ্রহ এখন ১৬৯ ম্যাচে ২ সেঞ্চুরিতে ৫০৪৪ রান। তার সামনে থাকা চার ব্যাটসম্যান হলেন বিরাট কোহলি (৫৭৫৯ রান), সুরেশ রায়না (৫৩৬৮ রান), রোহিত শর্মা (৫১৫৮ রান) ও ডেভিড ওয়ার্নার (৫০৩৭)।

ধাওয়ানের এতসব ইতিবাচক অর্জনের দিনে নেতিবাচক এক রেকর্ড গড়েছে দিল্লি ক্যাপিট্যালস। আইপিএলে প্রথম ইনিংসে কোনো ব্যাটসম্যানের সেঞ্চুরির পরেও সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ এখন দিল্লির। মঙ্গলবার তাদের ইনিংস থেমেছে মাত্র ১৬৪ রানে। এতদিন এটি ছিলো রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর দখলে। ২০০৯ সালের আসরে ডেকান চার্জার্সের বিপক্ষে ১১৪* রানের ইনিংস খেলেন মনিশ পান্ডে। কিন্তু ব্যাঙ্গালুরু সর্বসাকুল্যে করেছিল মাত্র ১৭০ রান।

এসএএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]