চ্যাম্পিয়ন হতে চান তাসকিন

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৪৯ পিএম, ২৪ অক্টোবর ২০২০

‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’ মুশফিকুর রহিম একাই একশো। প্রথম দিন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাহিনীর সাথে সুবিধা করতে পারেননি। ফিরে গিয়েছিলেন মাত্র ২ রানে। কিন্তু তারপর থেকেই দুর্বার মুশফিক।

স্ট্রাইকরেট তুলনামূলক কম, চার ও ছক্কার ফুলঝুরিও ছোটেনি তেমন। কিন্তু রানের নহর ঠিকই বইছে। অন্য সব তারকাদের চেয়ে তো বটেই, সব ব্যাটসম্যানের চেয়ে বেশি (২০৭) রান সংগ্রহকারী মুশফিক। বলা যায়, তার একার ব্যাটিং নৈপুণ্যেই নাজমুল হোসেন শান্তর দল রবিন লিগে দৌর্দন্ড প্রতাপ দেখিয়েছে।

অবশ্য আফিফ হোসেন ধ্রুব আর দুই তরুণ তুর্কি তৌহিদ হৃদয় ও ইরফান শুক্কুরও কম যাননি। তারাও ব্যাট হাতে রেখেছেন কার্যকর অবদান। কিন্তু সবার অলক্ষ্যে পেসার তাসকিন আহমেদের ভূমিকাও কম নয়।

ব্যাটসম্যানদের পাশাপাশি দলের সাফল্যে একটা বড় ভূমিকা রেখেছেন এ দ্রুতগতির বোলার। ভাইটাল ব্রেক থ্রু দেয়া ছাড়াও প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে সর্বাধিক সমীহ আদায় করে নিয়েছেন তাসকিন।

মোহাম্মদ সাইফউদ্দীনের মত ১২ উইকেট শিকারি তিনি নন। রুবেল হোসেনের মত সব ম্যাচে ধারাবাহিকভাবে ভালো বোলিং করে ১০ উইকেটের পতনও ঘটাননি। তারপরও শেষ ম্যাচে তামিম বাহিনীর বিপক্ষে ৩৬ রানে ৪ উইকেট দখলসহ এখন পর্যন্ত ৪ ম্যাচে ৭ উইকেট পেয়েছেন তাসকিন।

তার চেয়ে বড় কথা, এবারের প্রেসিডেন্টস কাপে বেশ জোরের ওপর বোলিং করেছেন তাসকিন। এ পেসারের গতি ও ধার চোখে পড়েছে সবার। শান্ত বাহিনীর প্রধান বোলিং অস্ত্রই এই পেসার। ফাইনালে মাঠে নামার আগে কি ভাবছেন তিনি?

কথা বার্তায় পরিষ্কার, শিরোপা স্বপ্ন এখন তার চোখে মুখে। তাসকিন বলেন, ‘ইনশাআল্লাহ লক্ষ্য থাকবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার।’ কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে রবিন লিগের ফলকে মানদণ্ড ধরলেন তাসকিন। তার ধারণা, দলের সবাই প্রাণপন চেষ্টা করেছে। সামর্থ্যের সবটুকু উজাড় করেই দিচ্ছে।

তাসকিনের ভাষায়, ‘আমাদের দল চারটার মধ্যে তিনটায় জিতেছে। আর সবাই সেরাটা দিচ্ছে এবং অনেক পরিশ্রম করছে। মাঠে সবাই ফিল্ডিং বলেন, ব্যাটিং বলেন সবার জায়গা থেকে সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করছে। চেষ্টা থাকবে ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার।’

এআরবি/এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]