জয়ের ছন্দে ফিরে এখন সেরা ক্রিকেটের দিকে তাকিয়ে ঢাকা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:৪৫ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০

প্রথম তিন ম্যাচে পর পর হার। ৫ দলের আসরে পয়েন্ট টেবিলে তলানিতে। সেখান থেকে ৪ নম্বর ম্যাচ হারলে নকআউট পর্বে টিকে থাকার সম্ভাবনা কমে যেতো অনেকটাই। তখন ফিরতি পর্বে প্রায় শতভাগ সাফল্য দরকার হতো বেক্সিমকো ঢাকার।

কাজেই গতকাল (বুধবার) ফরচুন বরিশালের সাথে খেলাটিতে জয় খুব দরকার ছিল। আর এমন সময়ে কাঙ্খিত জয়ের নাগালও পেয়েছে মুশফিকুর রহীমের দল। তাতে অধিনায়ক মুশফিকের পাশাপাশি প্রশান্তি কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের চোখে-মুখে।

আজ অনুশীলনে শরীরী ভাষাই বলে দিচ্ছিল, এক জয়ে কিছুটা হলেও ঘুরে দাঁড়াবার রসদ পেয়েছে ঢাকা শিবির। কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন মানছেন, এই জয়টা খুব দরকার ছিল। তাই তো মুখে এমন কথা, ‘অবশ্যই মোমেন্টামটা খুব প্রয়োজন ছিল। প্রথম জয় পাওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল আমাদের জন্য। প্রথম তিন ম্যাচে তো কোনো পয়েন্ট নিতে পারিনি।’

বুধবারের ম্যাচের পোস্টমর্টেম করতে গিয়ে সুজন বোঝানোর চেষ্টা করেন, অনেক দরকারি জয়টা পেয়ে দলের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে অনেকটাই। ঢাকা কোচের ভাষায়, ‘কালকের ম্যাচটা লো স্কোরিং ছিল। উইকেট কঠিন ছিল। তবুও ছেলেরা যেভাবে খেলেছে আমি খুশি। এখন সামনের দিকে দেখার পালা। ম্যাচ বাই ম্যাচ কিভাবে যাই। পরবর্তী ম্যাচ আমাদের রাজশাহীর বিপক্ষে। তাদের সাথে প্রথম ম্যাচে ২ রানে হেরেছিলাম। তারা খুব শক্ত দল, ভালো দল।’

নিজ দলের ওপর আস্থা আছে সুজনের। যেহেতু জয়ের ধারায় ফেরা গেছে, তাই আগামীকাল রাজশাহীর বিপক্ষে ম্যাচটিকে বাড়তি গুরুত্বের সঙ্গে দেখতে চান বেক্সিমকো ঢাকার কোচ।

সুজনের কথা, ‘আমি আমার দল নিয়ে আত্মবিশ্বাসী। ছেলেদের সামর্থ্য আছে। কিন্তু সেটা পুরোপুরি দেখাতে পারছে না, বিশেষ করে ব্যাটিংয়ে। বোলিংয়ে গত দুই ম্যাচ আমরা ভালো করেছি। যেটা আমাদের জন্য ইতিবাচক। ফিল্ডিং নিয়ে আমাদের আরও ভাবার সুযোগ আছে। আমরা আরও ভালো ফিল্ডিং করতে পারি। আগামীকালের ম্যাচটাতে আমরা চাইব নিজেদের সেরা ক্রিকেটটাই খেলতে।’

এআরবি/এমএমআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]