যে কারণে মুমিনুলের অপারেশন দুবাইতে করার চিন্তা বিসিবির

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৩:৩৩ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০

ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিমানবন্দর, টিম হোটেল, হাসপাতাল ও প্র্যাকটিস ভেন্যু দেখে সন্তুষ্ট হয়েই স্বদেশে ফিরে গেছে ক্যারিবীয় পর্যবেক্ষক দল। বিসিবির করোনা প্রটোকল আর নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখে যারপরনাই খুশি ওয়েস্ট ক্রিকেট বোর্ড পরিচালক আকশাই মানসিং এবং সিকিউরিটি ম্যানেজার পল স্লোওয়ে। ঐ দুই ক্যারিবীয়র সন্তুষ্টিই বলে দিচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাংলাদেশে আসা একরকম নিশ্চিত। দিনক্ষণ চূড়ান্ত না হলেও ধারণা করা হচ্ছে, ২০২১ সালের জানুয়ারির প্রথম ভাগেই ঢাকায় পা রাখতে পারে ক্যারিবীয়রা।

এদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আসার আগে হঠাৎ ডান হাতের বুড়ো আঙ্গুলে ভেঙে মাঠের বাইরে ছিটকে পড়েছেন টাইগার টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। এরই ভেতরে জানা হয়ে গেছে যে, মুমিনুলের আঙ্গুলে অপারেশন লাগবে। জাতীয় দলের ফিজিও ও বিসিবির চিকিৎসকদের ধারণা, অস্ত্রোপচারের পর মাসখানেকের ভেতরই সুস্থ হয়ে উঠতে পারবেন মুমিনুল। তাই বোর্ড থেকে চেষ্টা চলছে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অপারেশন করে ফেলার।

কিন্তু সেখানেও আছে বিপত্তি। সাধারণত বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের হাত ও পায়ের যে কোনো ইনজুরির চিকিৎসা হয় ইংল্যান্ডে। আর অপারেশন মানেই অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু করোনাকালীন সময়ে ঐ দুই দেশে গিয়ে অপারেশন করাতে হলে মুমিনুল হকের আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ খেলা সম্ভব হবে না। কারণ ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে আগে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

দুই সপ্তাহ হোটেলে বসে থাকার পর অপারেশন করাতে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া মানেই প্রায় দুই মাসের ধাক্কা। তাই মুমিনুলকে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া না পাঠিয়ে অন্যত্র অপারেশনের জন্য পাঠানোর কথা ভাবা হচ্ছে। ভেতরের খবর, জাতীয় দলের টেস্ট অধিনায়ককে দুবাই পাঠানোর চিন্তা চলছে জোরেসোরে। সব কিছু ঠিক থাকলে আর ভিসা হয়ে গেলে হয়তো আগামী দুই-তিনদিনের মধ্যেই দুবাই যেতে পারেন তিনি।

সত্যিই মুমিনুল দুবাই যাচ্ছেন, তার অপারেশন কি তাহলে সেখানেই হবে? এ প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে বিসিবি প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ঠিক কোথায় অপারেশন হবে, তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে যেহেতু ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় গেলে অন্তত দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে, তাই আমরা বিকল্প ও তৃতীয় ভেন্যুর কথা ভাবছি।

সেটা যে দুবাই, তাও অকপটে স্বীকার করেছেন দেবাশীষ চৌধুরী। তবে তার কথা, আসলে আমাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা ভাবতে হচ্ছে। তাই আমরা বিকল্প খুঁজছি। সেটা শুধু যে দুবাই-ই নয়, ভারতও আছে।

বিসিবি প্রধান চিকিৎসক মুখ ফুটে না বললেও নির্ভরযোগ্য সূত্রের খবর, শেষ পর্যন্ত মুুমিনুলকে হয়তো দুবাই পাঠানো হবে। কারণ দুবাইতে কোনো কোয়ারেন্টাইন লাগে না। আন্তর্জাদিক ফ্লাইটে ভ্রমণ করে দুবাই পা রাখলে পরদিন থেকেই মুক্ত হয়ে ঘোরা যায়। তাই মুমিনুলের অপারেশনটা দুবাইতে হবার সম্ভাবনাই বেশি। হয়তো কাল কিংবা পরশুর ভেতরে বিসিবি থেকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে।

এআরবি/এমএমআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]