সাকিব-সৌম্যর ব্যাটিং অর্ডার বদল নিয়ে ব্যাখ্যা হেড কোচের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:১৪ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২১

জাগো নিউজের পাঠকরা আগেই জেনে গেছেন, বিশ্বকাপে তিন নম্বরে খেলে তাক লাগানো সাকিব আল হাসান নয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডেতে এই পজিশনে খেলবেন তরুণ নাজমুল হোসেন শান্ত। আর কখনও ওপেনিং, কখনও তিন নম্বরে খেলার অভ্যাস গড়া সৌম্য সরকারের ব্যাটিং অর্ডার হবে সাত নম্বরে।

সোমবার বিকেলে কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে ঠিক সে কথাই বলেছেন। কি কারণে ব্যাটিং অর্ডারে এমন রদবদল? জাতীয় দলের হেড কোচ দিয়েছেন সে ব্যাখ্যাও।

ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আমি মনে করি দলে এখন একজন তরুণ ক্রিকেটার আছে, যার নাম শান্ত। যে বর্তমান সময়ে খুবই ভালো ফর্মে আছে। সে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডে সিরিজে ছিল দলে। আমাদের এটা নিশ্চিত করতে হবে যে, আমরা কজন তরুণ উইলোবাজকে তুলে আনতে চাচ্ছি। আর উপমহাদেশে তরুণ ব্যাটসম্যানদের গড়ে তোলার সেরা জায়গা হলো তিন নম্বর।’

সাকিবে চারে খেলানোর চিন্তা কেন? টাইগার হেড কোচের ব্যাখ্যা, ‘সাকিব দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে। সেক্ষেত্রে চার নম্বরে নামলে সে একটু থিতু হয়ে খেলার সুযোগ পাবে। আমরা জানি সাকিব বিশ্বমানের ক্রিকেটার। কিন্তু এটা ভুলে গেলে চলবে না, আমাদের ব্যাটিং অর্ডার পাথরের টুকরো নয় যে তা ভাঙা যাবে না। বিশ্বকাপের এখনো অনেক দেরি। তার আগে আমাদের বিভিন্ন বিকল্প খুঁটিয়ে দেখতে হবে।’

সৌম্যকে নিচে খেলানোর যৌক্তিকতা দেখাতে গিয়ে ডোমিঙ্গো জানান, আসলে মারকুটে এই ব্যাটসম্যানকে ফিনিশারের ভূমিকায় দেখার ইচ্ছে টিম ম্যানেজম্যান্টের।

ডোমিঙ্গো বলেন, ‘এ মুহূর্তে আমার মনে হয়, আমাদের টপ অর্ডার একদম সাজানো গোছানো ও প্রতিষ্ঠিত। তামিম-লিটন ওপেন করে। আর তাই আমরা সৌম্যকে মিডল অর্ডারে খেলানোর চিন্তা ভাবনা করছি। আমরা এমন একজনকে খুঁজছি, যে নিচের দিকে হাত খুলে খেলতে পারে।’

টাইগার কোচ যোগ করেন, ‘সৌম্যকে পাওয়ার হিটার হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। এছাড়া সে কয়েক ওভার জেন্টাল মিডিয়াম পেস বোলিংও করে দিতে পারে। আমি জানি সৌম্য ওপরের দিকে খেলেই বেশ কিছু ভালো ইনিংস উপহার দিয়েছে। তবে এখন আমরা সৌম্যকে ফিনিশারের ভূমিকায় দেখতে চাই। আমাদের প্রত্যাশা, রিয়াদের সাথে সে ইনিংস শেষ করে আসবে।’

সৌম্যর অভিজ্ঞতা এবং ক্লিন হিট এবিলিটি সাত নম্বর পজিশনে কাজে আসবে, বিশ্বাস ডোমিঙ্গোর। তিনি বলেন, ‘তার প্রতি আমাদের বিশ্বাস ও আস্থা আছে। আশা করছি সে ভালো পারফরম করবে। আসলে ৬-৭ নম্বরে খেলা সহজ নয়। কখনও কখনও শেষ দিকে ওভার পিছু ১০ রান করে তুলতে হয়।’

এআরবি/এমএমআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]