শুরুর ধাক্কা সামলে এগোচ্ছেন রুট-বেয়ারস্টো

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৪ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২১

৫ রানেই ২ উইকেট। লঙ্কান স্পিনার লাসিথ এম্বুলদেনিয়ার দুর্দান্ত বোলিংয়ে শুরুতেই বিপদে পড়েছিল ইংল্যান্ড। কিন্তু সেই বিপদ অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছেন জো রুট আর জনি বেয়ারস্টো।

গল টেস্টে অভিজ্ঞ এই যুগলের ব্যাটে চড়ে দ্বিতীয় দিন শেষে ২ উইকেটে ৯৮ রান তুলেছে ইংল্যান্ড। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস থেকে তারা পিছিয়ে আছে ২৮৩ রানে। রুট ৬৭ আর বেয়ারস্টো ২৪ রান নিয়ে তৃতীয় দিনে ব্যাটিংয়ে নামবেন।

এর আগে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজের সেঞ্চুরি আর নিরোশান ডিকভেলা এবং দিলরুয়ান পেরেরার প্রতিরোধ গড়া ইনিংসে ভর করে ৩৮১ রানে অলআউট হয় শ্রীলঙ্কা। ইংলিশ পেসার জেমস অ্যান্ডারসন একাই নেন ৬ উইকেট।

৩৮ বছর বয়সী অ্যান্ডারসন এই সিরিজের প্রথম টেস্টে খেলেননি। দ্বিতীয় টেস্টে একাদশে ফিরেই ভয়ংকর চেহারায় হাজির এই পেসার। ২৯ ওভার বল করে মাত্র ৪০ রান খরচায় নিয়েছেন ৬ উইকেট।

এই উইকেটগুলোর মধ্যে ছিলেন সেঞ্চুরিয়ান ম্যাথিউজ আর সেঞ্চুরির একদম দোরগোড়ায় চলে যাওয়া ডিকভেলাও। দ্বিতীয় দিনে নিজের ষষ্ঠ ডেলিভারিতেই ম্যাথিউজকে তুলে নেন অ্যান্ডারসন। উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেয়ার আগে ২৩৮ বলে ১১ বাউন্ডারিতে এই ব্যাটসম্যান করেন ১১০ রান।

তবে ১৯ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করা ডিকভেলা দারুণভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। সেঞ্চুরির সম্ভাবনাও ছিল। অ্যান্ডারসন তাকে দিয়েই নিজের ‘ফাইফার’ পূরণ করেন। ব্যক্তিগত ৯২ রানে মিডঅনে জ্যাক লিচের ক্যাচ হন ডিকভেলা।

তার আগে দিলরুয়ান পেরেরাকে সঙ্গে নিয়ে সপ্তম উইকেটে ৮৯ রানের লড়াকু এক জুটি গড়েন ডিকভেলা। তাকে ফেরানোর ওভারে এক বল বিরতি দিয়ে সুরাঙ্গা লাকমলকেও তুলে নেন অ্যান্ডারসন।

এরপর বলতে গেলে একাই দলকে টেনে নিয়েছেন পেরেরা। লঙ্কান শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি যখন স্যাম কুরানের শিকার হন নামের পাশে তার লেখা ৬৭ রান। ম্যাথিউজের সেঞ্চুরির সঙ্গে প্রথম দিনে ৫২ রান করেন দিনেশ চান্দিমাল।

এমএমআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]