সিরিজ হারলেও শেষ ম্যাচ থেকে ‘পয়েন্ট’ চায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:০০ পিএম, ২৪ জানুয়ারি ২০২১

তিন ম্যাচের সিরিজের এরই মধ্যে দুই ম্যাচ শেষ। সিরিজও নির্ধারণ হয়ে গেছে। এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচের গুরুত্ব তাই খুব একটা নেই কারো কাছেই।

কিন্তু একটা ক্ষেত্রে এই ম্যাচটির গুরুত্ব বাংলাদেশ এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ- দু’দলের কাছেই খুব গুরুত্বপূর্ণ। সেটা হলো ‘পয়েন্ট’। বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার এই সিরিজটি গণ্য করা হচ্ছে ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগের মধ্যে। সুতরাং, আগামী বিশ্বকাপ খেলার বাছাই পর্ব উৎরানোর জন্য প্রতিটি ম্যাচের নির্ধারিত ১০ পয়েন্ট প্রতিটি দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ।

লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশ সফরে পূর্ণ ৩০ পয়েন্ট অর্জন করার। ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগের এই সিরিজে প্রতি ম্যাচে ১০ পয়েন্ট করে নির্ধারিত। সেখানে প্রথম দুই ম্যাচ থেকে পূর্ণ ৩০ পয়েন্ট নিজেদের নামের পাশে লিখে নিয়েছে বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে বাকি ১০ পয়েন্ট যোগ করতে পারলে সিরিজের পূর্ণ ৩০ পয়েন্টই অর্জন করবে বাংলাদেশ। সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফিরবে খালি হাতে।

শেষ ম্যাচে তাই গুরুত্বপূর্ণ ১০ পয়েন্ট নিতে মরিয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজও। তাদের লক্ষ্য এখন ৩০ পয়েন্ট তো হলো না, অন্তত ১০ পয়েন্ট নিয়ে হলেও দেশে ফিরে যাই। ওয়েস্ট ইন্ডিজ কোচ ফিল সিমন্স নিজেও সে কথা জানিয়েছেন। বলেছেন, ‘আমরা এখানে এসেছিলাম ৩০ পয়েন্টের লক্ষ্যে। এখনও ১০ পয়েন্ট অর্জন করার সুযোগ রয়েছে। প্রথম ম্যাচে ১২২, পরে ১৪৮ রান করেছিলাম। কিন্তু ভালো কিছুর জন্য অন্তত ২৩০-২৫০ রানের চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে হবে। তাহলেই ম্যাচটাকে প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক করতে পারবো। বোলারদেরকে তো কিছু পুঁজি দিতে হবে! তবে এখনও অবশ্যই ১০ পয়েন্ট অর্জন করা সম্ভব।’

বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার ক্ষেত্রে এখন এই সিরিজটিই নয়, ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগে অন্তর্ভূক্ত প্রতিটি সিরিজই গুরুত্বপূর্ণ। তবে, বাংলাদেশের সামনে যেহেতু নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে কঠিন একটি সিরিজ অপেক্ষা করছে, সে কারণে এখনই নিজেদের সাইড বেঞ্চকেও ঝালিয়ে নেয়ার দারুণ একটি সুযোগ সিরিজের শেষ ম্যাচে।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ দলে যে পরিবর্তন আসবে, সে ইঙ্গিত আগেই দিয়ে রেখেছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। নিউজিল্যান্ড সফরকে সামনে রেখে সাইড বেঞ্চের শক্তি পরখ করাও জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টের সামনে।

পেসার তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন রয়েছেন সবার আগে। দলের অংশ হওয়ার পর থেকে একাদশে জায়গা পাওয়ার বড় দাবিদার তারা।

মিডল অর্ডারে মোহাম্মদ মিঠুন, আফিফ হোসেন ধ্রুব শক্তিশালী একটি অবস্থান তৈরি করতে সক্ষম। অথচ, তারা রয়েছেন একাদশের বাইরে। মেহেদী হাসান হতে পারেন আরেক দুর্দান্ত সংযোজন। এরা সবাই রয়েছেন ওয়ানডে স্কোয়াডে। এছাড়া বোলিং পাওয়ার প্লে তো, দুর্দান্ত বোলিং করার জন্য উপযুক্ত তিনি। স্পিনার তাইজুল রয়েছেন স্কোয়াডে।

কাকে রেখে কাকে সুযোগ দেয়া হবে শেষ ম্যাচের একাদশে? তামিম এ কারণেই বলেছেন, শেষ ম্যাচে কিছু পরিবর্তন আসবেই। যদিও বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন জানিয়ে দিয়েছেন, সেরা একাদশ নিয়েই খেলতে নামবে বাংলাদেশ।

এখন দেখার বিষয়, শেষ ম্যাচে কি করে বাংলাদেশ। অন্যদিকে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ অন্তত ১০টি পয়েন্ট অর্জন করার জন্য সোমবার কি পরিকল্পনা করে মাঠে নামে তারা!

আইএইচএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]