তরুণদের সুযোগ দেয়ার চেয়ে ৩০ পয়েন্টই লক্ষ্য তামিমের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:৩০ পিএম, ২৪ জানুয়ারি ২০২১

‘আরে এ ভাঙ্গাচোরা, দুর্বল, অনভিজ্ঞ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তামিম, সাকিব, মুশফিক, রিয়াদ, লিটন, সৌম্য, মিরাজ, মোস্তাফিজদের খেলানোর দরকার কী? তরুণদের খেলালেই তো চলে। সেই দলই জেসন মোহাম্মদ আর রভম্যান পাওয়েলদের জন্য যথেষ্ট।’

এটা কোন ক্রিকেট এক্সপার্টের মন্তব্য নয়। তবে দেশের ক্রিকেট অনুরাগীদের একট বড় অংশের ধারণা তাই। প্রথম দুই ম্যাচে তামিমের দল খুব সহজে জিতেছে। জেসন মোহাম্মদ বাহিনী এখন পর্যন্ত এতটুকু প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেনি। দুই ম্যাচে দেড়শো রানও করতে পারেনি। যথাক্রমে ১২২ আর ১৪৮-এ থেমে গেছে ইনিংস।

শুধু ওই পরিসংখ্যানই যথেষ্ঠ নয়। মাঠে শরীরি অভিব্যক্তি, অ্যাপ্রোচ-অ্যাপ্লিকেশনই বলে দিচ্ছে বাংলাদেশের যে দলটি খেলছে তাদের তুলনায় ক্যারিবীয়রা অতি দুর্বল।

কোনোভাবেই পেরে ওঠার শক্তি নেই সফরকারীদের। সে কারণেই তরুনদের খেলানোর কথা উঠছে। ভাবা হচ্ছে তারুণ্য নির্ভর বাংলাদেশের সাথেও মাঠের লড়াইয়ে কুলিয়ে উঠতে পারবে না ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই দল।

ভক্ত ও সমর্থকরা যাই ভাবুন আর বলুন না কেন, কঠিন সত্য হলো- টিম বাংলাদেশের ভাবনা ও লক্ষ্য পরিকল্পনা ভিন্ন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই দলের সাথে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ৩-০তে জিততে পারলে ৩০ পয়েন্ট যোগ হবে। যেটা পরবর্তী বিশ্বকাপের কোয়ালিফাই মার্কস হিসেবে গণ্য হবে। তাই দল নিয়ে পরীক্ষা-নীরিক্ষা চালানোর চেয়ে সিরিজের সব ম্যাচ জিততে চায় টাইগাররা।

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ২৪ ঘণ্টা আগে জাগো নিউজের সাথে আলাপে এ কথা জানিয়েছেন। আজ রোববার ভিডিও বার্তায় বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবালের মুখেও সেই কথা।

তামিম সোজা বলে দিয়েছেন, ‘হ্যাঁ, আমরা সিরিজ জিতেছি; কিন্তু আরও ১০ পয়েন্ট পাওয়ার আছে। আমরা জানি ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য প্রথম দুই ম্যাচের অভিজ্ঞতা ভালো ছিল না; কিন্তু তারা একটি বিপদজনক দল, যে কোনো সময়েই তারা ফিরে আসতে পারে।’

তামিম আরও জানিয়ে দিয়েছেন, এ সিরিজ থেকে তাদের লক্ষ্য ছিল ৩০ পয়েন্ট তুলে নেয়া। তার ২০ পয়েন্ট হয়ে গেছে। আরও ১০ পয়েন্ট এখনো বাকি। আগামীকাল ২৫ জানুয়ারি জিতলেই সে পয়েন্টও তোলা হয়ে যাবে। তাই টাইগার ক্যাপ্টেনের কথা, ‘আগামীকালের ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ। হ্যাঁ, আমরা সিরিজ জিতেছি; কিন্তু যেটা আমি বললাম, আরও ১০ পয়েন্ট বাকি আছে জেতার জন্য।’

তারপরও তামিমের উপলব্ধি এখনো উন্নতির জায়গা আছে। ‘আমি নিশ্চিত উন্নতির অনেক জায়গা আছে। নিখুঁত ম্যাচ খেলা খুবই কঠিন। আমার মনে হয়, আমরা তিন ডিপার্টমেন্টেই উন্নতি করতে পারবো। আরেকটু ভালো বোলিং করতে পারি, আরেকটু ভালো ফিল্ডিং করতে পারি এবং ব্যাটিংয়ে আমরা ভালো শুরু পাচ্ছি; কিন্তু সেটিকে বড় করতে পারছি না, শেষ করতে পারছি না। এই জায়গাগুলোতে আমাদের উন্নতি করে যেতে হবে।’

এআরবি/আইএইচএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]