করোনার কারণে কানাডার গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি হবে মালয়েশিয়ায়

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৪২ পিএম, ০৮ এপ্রিল ২০২১

ফ্রাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টের জনপ্রিয়তা বাড়ার কারণে কানাডায় আয়োজন করা হয় গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। শুরু থেকেই তুমুল জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এই টুর্নামেন্টটি। ২০১৮ এবং ২০১৯৮ সালে সফলভাবে আয়োজন করা হয় গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি।

কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে ২০২০ সালে আর মাঠে গড়ায়নি ৬ দলের টুর্নামেন্টটি। আয়োজকরা এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি আয়োজন করার। কিন্তু করোনাভাইরাসের হঠাৎ যেভাবে বিস্ফোরণ ঘটে গেছে, তাতে আয়োজন নিয়েই চিন্তায় পড়ে গেছে আয়োজকরা।

করোনার কারণে লজিস্টিক যে সাপোর্ট দরকার, সেগুলো পাওয়া যাবে না। যার ফলে আয়োজকরা গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টটি আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালয়েশিয়ায়। জুনের ২৮ তারিখ থেকে শুরু হবে এই ফ্রাঞ্চাইজি আসর। শেষ হবে ১৫ জুলাই।

এবারের মৌসুমে ১৮ দিনে মোট ২২টি ম্যাচ খেলা হবে। ভেন্যু কেবল একটি, কিনরারা ওভাল। মালয়েশিয়ায় এই একটি স্টেডিয়ামই আন্তর্জাতিক মানের। সে কারণেই এই এক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টের সবগুলো খেলা।

যেখানে ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের খেলা। মাঝে মধ্যে এসিসি এবং আইসিসির বিভিন্ন বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টের খেলাও অনুষ্ঠিত হয় এখানে। ২০০৬ সালে কিনরারা ওভাল অস্ট্রেলিয়া, ভারত এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে নিয়ে একটি ত্রিদেশীয় সিরিজও আয়োজন করেছিল।

গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের প্রথম দুই আসরে উপস্থিত ছিলেন বিশ্বের অনেক নামকরা ক্রিকেটার। যেমন ক্রিস গেইল, লাসিথ মালিঙ্গা, কাইরন পোলার্ড, আন্দ্রে রাসেল, শহিদ আফ্রিদি, শোয়েব মালিক, ডেভিড মিলার, স্টিভেন স্মিথ এবং ব্রেন্ডন ম্যাককালাম।

ক্রিকেট কানাডার প্রেসিডেন্ট রাশপাল বাজওয়া বলেন, ‘কানাডার ক্রিকেটার এবং ক্রিকেট সমর্থকদের জন্য খুবই হতাশাজনক একটি সংবাদ যে, আমাদের গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টটি নাকি কানাডায় অনুষ্ঠিত হবে না, চলমান করোনা মহামারির কারণে। কানাডিয়ান হেলথ গাইডলাইন অনুসারে টুর্নামেন্টটি সরিয়ে নেয়া হয়েছে।’

আইএইচএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]