বৃহস্পতিবার থেকে অনুশীলন করতে পারবেন মুমিনুলরা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:৪২ পিএম, ১৪ এপ্রিল ২০২১

গত ১২ এপ্রিল শ্রীলঙ্কায় পা রেখেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। করোনা প্রটোকল অনুসারে বিমানবন্দরেই দলের সব সদস্যের কোভিড-১৯ টেস্টের জন্য স্যাম্পল (পিসিআর টেস্ট) নেয়া হয়। এরপর নিগোম্বোয় দলের ক্রিকেটার এবং কর্মকর্তাদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়।

নিগোম্বায় তিনদিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকবে বাংলাদেশ দল। শ্রীলঙ্কা থেকে টিম ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন জানিয়েছেন, আজ ১৪ তারিখ রাতে শেষ হবে কোয়ারেন্টাইন। ১৫ এপ্রিল থেকে অনুশীলনে নামতে পারবেন মুমিনুল হকরা। তবে শর্ত একটাই, করোনা টেস্টের জন্য যে স্যাম্পল নেয়া হয়েছে, তাতে নেগেটিভ আসতে হবে।

যাদের নেগেটিভ আসবে তারা অনুশীলনে নেমে পড়বেন। কারও পজিটিভ হলে তাকে দলের বাইরে আইসোলেশনে রাখা হবে। নেগেটিভ না হওয়া পর্যন্ত তিনি বা তারা দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারবেন না।

কোয়ারেন্টাইনপর্ব বরাবরই কঠিন হলেও আপাতত সময়টা খুব খারাপ কাটছে না বাংলাদেশ দলের। মুমিনুলরা আছেন কলম্বোর কাছে নিগোম্বো নামের এক অন্য শহরে। যেটা কলম্বো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পশ্চিমে সাড়ে ১২ কিলোমিটার দূরে এবং কলম্বো শহরের উত্তরে।

টিম বাংলাদেশ এখন আছে নিগোম্বোর জেট ইয়াং বিচ হোটেলে। যেটা একদমই সাগর তীরে। একদম সাগরের কোলঘেঁষে। যেখানে চমৎকার নৈসর্গিক পরিবেশ। একা হোটেল কক্ষে থাকলেও বাইরে তাকালে মন ভরে যায় ক্রিকেটারদের।

রুম কোয়ারেন্টাইন পর্ব শেষে ১৫ ও ১৬ এপ্রিল কোয়ারেন্টাইন অনুশীলন করবে বাংলাদেশ দল। এরপর ১৭-১৮ এপ্রিল হবে নিজেদের মধ্যকার দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ। এই ম্যাচে সবার অবস্থা পর্যালোচনা করে ঘোষণা দেয়া হবে টেস্ট সিরিজের মূল স্কোয়াড।

পরে ১৯ ও ২০ এপ্রিল থাকছে দুইদিন অনুশীলনের সুযোগ। অনুশীলন শেষে ২১ এপ্রিল থেকে শুরু হবে মূল সিরিজের লড়াই। পরে দ্বিতীয় ম্যাচ হবে ২৯ এপ্রিল থেকে। দুইটি ম্যাচই হবে ক্যান্ডির পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে। সিরিজ শেষে ৪ মে দেশে ফিরে আসবে বাংলাদেশ দল।

এআরবি/এমএমআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]